ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মন্ত্রীর বৈঠক সেপ্টেম্বরে

ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মন্ত্রীর বৈঠক সেপ্টেম্বরে

বাংলাদেশের বিশাল জনগোষ্ঠী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহার করেন। ফেসবুক ব্যবহারের যেমন সুফল রয়েছে তেমনি রয়েছে নানা রকমের ঝক্কি-ঝামেলা। রয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ও।


ইন্টারনেট তথা ফেসবুকের এসব নিরাপত্তা ও কনটেন্ট নিয়ে আপত্তি-অনাপত্তির মধ্যে এবার আশার সঞ্চার হয়েছে। কারণ, ফেসবুক প্রধান কার্যালয়ের প্রতিনিধির সঙ্গে ঢাকায় বৈঠক করতে যাচ্ছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। 
 
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে এ বৈঠক করবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।
 
এ বিষয়ে মোস্তাফা জব্বার বুধবার বলেন, আগামী মাসের শেষ দিকে বৈঠক হবে। আমরা আলোচনায় যাচ্ছি, তারা আসবে এটা নিশ্চিত।
 
কারা কারা আসবে- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী প্রধান কার্যালয়ের লোকজন আসবে। ভাষা সংক্রান্ত যারা কাজ করে তারা এবং এ অঞ্চলের যারা প্রতিনিধিত্ব করে তারা।
 
ফেসবুকের সঙ্গে আলোচনা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, তাদের সঙ্গে বসতে পারি কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা ছিল।
 
সামাজিক যোগাযোগ সহজতর ও ডিজিটাল মার্কেটিংসহ নানাবিধ সুবিধা পাওয়া গেলেও ফেসবুকে নারীর প্রতি অবমাননাকর বা সামাজিক ও রাজনৈতিক এবং রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার বিভিন্ন কনটেন্ট অনেক সময় ভাবিয়ে তুলেছে।
 
বিষয়গুলো নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে মেইল-আদান প্রদানে যোগাযোগ হলেও কোনো কোনো ক্ষেত্রে ইতিবাচক সাড়া মেলেনি ফেসবুকের কাছে।
 
এরআগে ২০১৫ সালে তৎকালীন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ওই বছরের ডিসেম্বরে ফেসবুকের দু’জন প্রতিনিধি ঢাকায় এসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বিটিআরসিসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠক করেন। ওই দু’জন হলেন- এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের কর্মকর্তা দিপালী লিবার হেন (দক্ষিণ এশিয়ার পলিসি ম্যানেজার) ও বিক্রম লাংয়ের (রাজনৈতিক ও আইন উপদেষ্টা)। তারা বিভিন্ন বিষয়ে বাংলাদেশে এসে ইতিবাচক সাড়া দেন। 
 
প্রায় চার বছরের মাথায় ঢাকায় অনুষ্ঠেয় ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এবারের আলোচ্য বিষয় নিয়ে টেলিযোগাগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার  বলেন, আলোচ্য বিষয় এখনও চূড়ান্ত করিনি। তবে আমাদের পক্ষ থেকে যা দরকার তা থাকবে। একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছি তারা আলোচ্য বিষয় চূড়ান্ত করবে।
 
‘মন্ত্রণালয়, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ যারা ডিজিটাল নিরাপত্তার সঙ্গে যুক্ত তারা সবাই কমিটিতে থাকবে।’
 
ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের একজন কর্মকর্তা  বলেন, আগামী ২১-২২ সেপ্টেম্বর এ বৈঠক হতে পারে। আলোচ্যসূচি নির্ধারণে সাইবার থ্রেট ডিটেকশন অ্যান্ড রেসপন্স প্রকল্পের পরিচালক মো. রফিকুল মতিনকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
 
ওই কর্মকর্তাও বলেন, ফেসবুকের প্রধান কার্যালয় থেকে প্রতিনিধি আসবে, তবে এখনও নাম পাওয়া যায়নি।