ফিলিপিন্সের পর হংকং, চীনে টাইফুনের তাণ্ডব, নিহত ৪

ফিলিপিন্সের পর হংকং, চীনে টাইফুনের তাণ্ডব, নিহত ৪
ফিলিপিন্সের পর হংকং, চীনে টাইফুনের তাণ্ডব, নিহত ৪

সুপার টাইফুন মাংখুট ফিলিপিন্সের উত্তরাঞ্চলে তাণ্ডব চালানোর পর হংকং ও প্রতিবেশী ম্যাকাওয়ের মাঝ দিয়ে এগিয়ে চীনের মূল ভূখণ্ডে হাজির হয়েছে।

টাইফুনের পূর্বাভাসের পর রোববার চীনের গুয়াংডং প্রদেশ ও হাইনান দ্বীপ থেকে প্রায় ২৫ লাখ লোককে সরিয়ে নেওয়া হয়; দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়ার বরাতে জানিয়েছে বিবিসি, বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এদিন মাংখুটের প্রভাবে হংকং ও ম্যাকাওয়ের কিছু এলাকায় বন্যা দেখা দেয়। তবে এ দুটি অঞ্চলে কেউ নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়নি।

ঝড়ের তাণ্ডবে হংকংয়ের বেশ কয়েকটি আকাশচুম্বি ভবনের জানালার কাঁচ ভেঙে গেছে। গাছপালা উপড়ে পড়েছে। রোববার বিমান চালাচল বন্ধ থাকার পাশাপাশি অনেক গণপরিবহনও বন্ধ ছিল।

সাম্প্রতিক বছরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এই টাইফুনের মোকাবিলার পর সোমবার হংকংয়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে থাকা রাস্তাগুলো পরিষ্কারের কাজ শুরু হয়েছে।

শহরটির অর্থ বাজার ও অন্যান্য দপ্তরগুলোতে স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে খবর দিয়েছে রয়টার্স।

টাইফুনটি এখন চীনের আরও ভিতরের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঝড়ে চীনের সবচেয়ে জনসংখ্যাবহুল প্রদেশ গুয়াংডংয়ে চার জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম চায়না সেন্ট্রাল টেলিভিশন।

গণমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, গুয়াংডংয়ের পার্শ্ববর্তী স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল গুয়াংশির  ৩৮টি নদীর জন্য বন্যা সতর্কতা জারি করা হয়েছে এবং ওই এলাকার ১২টি উপকূলীয় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র তাদের দেখা সবচেয়ে বড় ঢেউয়ের খবর দিয়েছে।

মাংখুটের কারণে ১৩ হাজার ৩০০ হেক্টর কৃষিখামারের ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলেও জানিয়েছে গণমাধ্যমটি।

চীনের আবহাওয়া প্রশাসন টাইফুনটিকে ‘ঝড়ের রাজা’ অভিহিত করে স্থানীয় সময় ভোর ৬টায় এটি পশ্চিম দিকে গুয়াংশি অঞ্চলের দিকে এগিয়ে গিয়ে দুর্বল হয়ে ‘ক্রান্তীয় ঝড়ে’ পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছে।

ঝড়টি সোমবার গুইজো, ছংছিং ও ইউনান প্রদেশে আঘাত হানতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া প্রশাসন জানিয়েছে, ১৯৪৯ সালে রেকর্ড রাখা শুরুর পর থেকে দক্ষিণপূর্ব চীনে আঘাত হানা সবচেয়ে শক্তিশালী ১০টি টাইফুনের অন্যতম মাংখুট, যেটি ঘন্টায় প্রায় ১৬২ কিলোমিটার বাতাসের বেগ নিয়ে ওই অঞ্চলে আঘাত হেনেছে।

এর আগে শনিবার সুপার টাইফুন মাংখুট ঘন্টায় ২০০ কিলোমিটারেরও বেশি বাতাসের বেগ নিয়ে ফিলিপাইনের মূল দ্বীপ লুজনের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোতে তাণ্ডব চালায়। সেখানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি অন্তত ৫০ জন নিহত হয়।