ফাঁকা মাঠে নয়, খেলেই গোল দিতে চাই : নাসিম

ফাঁকা মাঠে নয়, খেলেই গোল দিতে চাই : নাসিম

 আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলির সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আমরা এবার ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চাই না। খেলেই গোল দিতে চাই। বিএনপি এবং খালেদা জিয়াকে নিয়েই নির্বাচন করতে চাই।  মঙ্গলবার দুপুরে মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বুধবারের জনসভাকে সফল করতে মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত এ বর্ধিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আবুল হাসনাত।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নাসিম বলেন, বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল বলেছেন খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে বাদ দিয়ে আবারো নির্বাচন করতে চায় আওয়ামী লীগ। তার বক্তব্যের জবাবে বলতে চাই। আমরা গতবারও আপনাদের নির্বাচনে আনার জন্য চেষ্টা করেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের নির্বাচনে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেছিলেন, প্রয়োজনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়সহ ৫টি মন্ত্রণালয় তাদের দেয়া হবে। কিন্তু আপনারা আসেননি। আমরা কি করবো? ফাঁকা মাঠে কে গোল দিতে চায়? তাও আমরা ২০১৪ সালে ফাঁকা মাঠে গোল দিয়েছিলাম। এবার আমরা ফাঁকা মাঠে নির্বাচন করতে চাই না। আপনারা নির্বাচনে আসুন। নির্বাচন নিয়ে কোনো চিন্তাভাবনা করে লাভ নেই। নির্বাচন যথাসময়ে-যথা নিয়মে হবে।  বিএনপিকে নিয়েই নির্বাচন করতে চাই। বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে আমরা জেলে পাঠাইনি। তিনি একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী, একজন বয়স্ক নারী, তাকে জেলে পাঠানো আমাদের জন্য সুখবর নয়। আমরাও জেল খেটেছি, জেলে কষ্ট হয়, তা আমরা জানি। সেজন্য আমরা চাই না উনি জেলে থাকুক। আইনি প্রক্রিয়ায় উনি জেলে গেছেন, আইনি প্রক্রিয়ায়ই আবার বের হয়ে আসবেন। দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণ সবাইকে বুধবারের জনসভায় উপস্থিত হওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে নাসিম বলেন, জনসভা যত বড় হবে, আমাদের শক্তি তত বৃদ্ধি পাবে। ক্যান্টনমেন্ট নয় জনগণই আমাদের বড় শক্তি। তাই পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সবাই জনসভায় আসবেন। খালেদা জিয়া জেলে থাকলে দৈনিক বিএনপির ১০ লাখ ভোট বৃদ্ধি পায়, বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদের এ বক্তব্যের সমালোচনা করে নাসিম বলেন, তার (মওদুদ) কথা অনুযায়ী নির্বাচনের যে সময় বাকী আছে তাতে উনি ৩০ কোটি ভোট পাবেন। দেশে মোট ভোটার হলো সাড়ে সাত কোটি। উনিই যদি ৩০ কোটি পান, তাহলে আমরা কি পাব।  আসলে এরকম কথা যখন বলেন, তখন হিসাব করেন না তারা। মওদুদকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন,  এসব মতলববাজ আইনজীবীদের কারণেই খালেদা জিয়া ক্যান্টনমেন্টের বাড়ি হারিয়েছেন। এখন আবার জেলে গেছেন। আমি বলি, আপনি মতলববাজ আইনজীবী বাদ দিয়ে ভালো অইনজীবী দেন, জেল থেকে বের হয়ে আসবেন। সভায় আরও  বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ,  বংশাল থানা সভাপতি গোলাম মোস্তফা, গেন্ডারিয়া থানা সভাপতি শহিদুল্লাহ মিরু সহ বিভিন্ন থানার সভাপতিবৃন্দ।