প্রাথমিক ও জেএসসি’র ফল

প্রাথমিক ও জেএসসি’র ফল

অর্ধকোটি শিশু সাফল্যের আনন্দে ভাসছে দেশ। এই সাফল্য তাদের আরেক ধাপ এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জোগাবে। নতুন উদ্যমে শিশুরা শুরু করবে নতুন বছর, নতুন ক্লাস। পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় এবারের পাসের হার ৯৭.৫৯ শতাংশ। ইবতেদায়িতে পাসের হার ৯৭.৬৯ শতাংশ। প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ লক্ষ ৬৮ হাজার ১৬৩ জন। ইবতেদায়িতে পূর্ণ জিপিএ পেয়েছে ১২ হাজার ২৬৪ জন। প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়ি উভয় ক্ষেত্রেই এবার পাসের হার ও জিপিএ ৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি। অষ্টম শ্রেণির জেএসসি ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় এবার পাস করেছে ৮৫.৮৩ শতাংশ শিক্ষার্থী। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬৮ হাজার ৯৫ জন শিক্ষার্থী। সোনামনিদের এই সাফল্য আমাদের সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মাণে সহায়ক হবে। একই দিনে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পাঠ্য পুস্তক বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরীক্ষায় ফল প্রকাশের ক্ষেত্রে আমাদের ইতিবাচক অর্জন প্রমাণ হয়েছে স্বল্প সময়ের মধ্যে তা সম্পন্ন করার মাধ্যমে। এটা কয়েক বছর ধরেই চলে আসছে। জানুয়ারিতে সেশন শুরু হওয়ার আগেই এই ফল প্রকাশের কারণে শিক্ষার্থীদের ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিশেষ সুবিধা হবে। এতে করে সময় নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি থাকছে না। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যের বই পৌছে দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধনের বিষয়টি। এ ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগও সফল বলে মনে করা যায়। সোনামনিদের এই সাফল্যের জন্য তাদের অভিনন্দন। এই ধারাবাহিকতা ঠিক রেখে ভবিষ্যতে অন্যান্য ঘাটতি ও ত্রুটির দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে, যাতে করে ঝরে পড়া শিক্ষার্থীর হার শূন্যে নামিয়ে আনা যায়  এবং শতভাগ শিশুর শিক্ষা লাভের সরকারি নীতিমালা কার্যকর হয়, সেদিকে নজর দিতে হবে।