প্রশিক্ষক অজ্ঞান, প্লেন অবতরণ করালেন শিক্ষানবিশ

প্রশিক্ষক অজ্ঞান, প্লেন অবতরণ করালেন শিক্ষানবিশ

আকাশে প্লেন ওড়ানোর স্বপ্ন আছে অনেকেরই। তবে, কপাল খারাপ থাকলে সে স্বপ্নই দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠলে কেমন লাগে, তা হাঁড়ে হাঁড়ে বুঝতে পেরেছে অস্ট্রেলিয়ান এক তরুণ।  


উড়ন্ত অবস্থায় প্রশিক্ষক অজ্ঞান হয়ে গেলে হঠাৎই গোটা প্লেনের দায়িত্ব এসে পড়ে শিক্ষানবিশ পাইলট ম্যাক্স সিলভেস্টারের কাঁধে। মাত্র প্রশিক্ষণ চলছে, এখনো ঠিকঠাক প্লেন চালানো শেখা হয়নি। তার ওপর, ওই ধরনের প্লেনে এটিই ছিল তার প্রথম উড্ডয়ন।

তবে, ভেঙে পড়েনি ম্যাক্স। দারুণ সাহস আর বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে ঠিকই বিপদ সামলে ওঠে সে।

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) নাইন নিউজের বরাতে এ খবর জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিপদসঙ্কেত দেওয়ার পর এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারের (এটিসি) সাহায্যে ভালোভাবেই প্লেন অবতরণ করায় ওই শিক্ষানবিশ পাইলট।

ঘটনার সময় রেকর্ড করা একটি অডিওতে শোনা যায়, এটিসি অপারেটর ম্যাক্সকে বলছেন, তুমি কি প্লেন চালাতে পারো?

তার জবাব, এটা আমার প্রথম অনুশীলন।

এসময় বেশ শান্তভাবেই অপারেটর বেশ কয়েকবার প্রশিক্ষক পাইলটের অবস্থা জানতে চান। প্রতিবারই উত্তর আসে, তিনি সাড়া দিচ্ছেন না।

পরে অপারেটর ম্যাক্সকে বলেন, এখন তোমার প্রধান কাজ, প্লেনের দিকে লক্ষ্য রাখা। আর এটি সে খুব ভালোভাবে করছে বলেও উৎসাহ দেন তিনি। 

আর তাতে ম্যাক্সের জবাব, আমার উড্ডয়ন প্রশিক্ষক বলতেন, আমি তার সেরা ছাত্র।

শুধু কথাই নয়, কাজেও তার প্রমাণ রেখেছে এ তরুণ। বিমানবন্দরে কয়েক ডজন মানুষের সামনে সুনিপুণভাবেই প্লেন অবতরণ করায় সে।

গত শনিবার (৩১ আগস্ট) অস্ট্রেলিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে জান্ডাকোট বিমানবন্দরে এ ঘটনা ঘটে।
 
প্লেন অবতরণের পর অজ্ঞান প্রশিক্ষককে দ্রত স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত না হলেও স্থিতিশীল বলে জানানো হয়েছে।