প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ভোটারদের সাথে তামাশা : রিজভী

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ভোটারদের সাথে তামাশা : রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন তাকে ভোটারদের সাথে শ্রেষ্ঠ তামাশা বলেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, যে নির্বাচনে বলপ্রয়োগের মাধ্যমে জালভোট প্রদানসহ নানা অনিয়মের তদন্ত দাবি করেছে জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্রসহ উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলো; যে নির্বাচনে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র বাবার সঙ্গে ভোট দিতে পারে, মরা মানুষ ভোট দিতে পারে, সন্ত্রাসীরা কেন্দ্র দখল করে লাইন ধরে সিল মারতে পারে- সেই নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উচ্ছ্বসিত প্রশংসায় এটাই প্রমাণিত হল যে, ভোট ডাকাতির হুকুমদাতা সরকারের শীর্ষ নেতারা।

সোমবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রিজভী। বিএনপির এই নেতা বলেন, খুলনা সিটি নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে এটাই পরিষ্কার হয়ে গেল যে- আগামী নির্বাচনগুলোও হবে খুলনা মডেলে। তিনি নিজেই প্রমাণ করলেন তার অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে তা হবে বিরোধী দলগুলোর জন্য আত্মঘাতি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

এদিকে, দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক আলোচনা সভায় জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে আওয়ামী লীগ উলঙ্গ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান। তিনি বলেন, আজকেও আওয়ামী লীগ চাইছে যে- দেশের মানুষ তাদের ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হোক, তাতে তাদের কিছু আসে-যায় না। বরং যত বঞ্চিত হবে তত তারাই নিরাপদ হবে, নিরাপদভাবে দেশ ভবিষ্যতে আবার পরিচালনার জন্য তথাকথিত ভোটাধিকার প্রয়োগের যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তা অক্ষুন্ন রাখতে চায়। এই অবস্থার উত্তরণে সকলকে আন্দোলনের প্রস্তুতি গ্রহণের আহ্বান জানান নোমান। দেশ বাঁচাও, মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর মুক্তির দাবিতে এই সভা হয়।

সংগঠনের সভাপতি কেএম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য দেন-বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, বগুড়া জেলা বিএনপির শিশুবিষয়ক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন চৌধুরী, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সাত্তার পাটোয়ারি, আরিফা সুলতানা রুমা প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।