প্রধানমন্ত্রীকে মালয়েশিয়ার দিকে তাকাতে বললেন মির্জা ফখরুল

প্রধানমন্ত্রীকে মালয়েশিয়ার দিকে তাকাতে বললেন মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মালয়েশিয়ার নির্বাচনের দিকে তাকাতে বলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মালয়েশিয়ার নির্বাচনের উদাহরণ টেনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন- দুর্নীতি করলে, জনগণ ও গণতন্ত্রের বাইরে চলে গেলে সব শক্তি দিয়েও জনমতকে প্রতিহত করা যায় না। সেটার প্রমাণ করেছে মালয়েশিয়ার জনগণ।গতকাল শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনীতি, সংগ্রাম ও সফলতার ৩৪ বছর শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ফখরুল। ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টারের উদ্যোগে প্রদর্শনীতে ৭৪টি আলোকচিত্র স্থান পেয়েছে। মালয়েশিয়ার প্রসঙ্গ টেনে ঐক্যের ডাক দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আসুন আমরা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করে যে ভয়াবহ দানব সরকার আমাদের সবকিছু লুটে নিয়ে যাচ্ছে, তাকে পরাজিত করি। একইসঙ্গে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি- এই হোক আমাদের আজকের শপথ।

 বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে অভিযোগ করে অবিলম্বে তার মুক্তির দাবি জানান মির্জা ফখরুল। গাজীপুর ও খুলনা সিটি নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি অভিযোগ করেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ভোট নিয়ে নাটক করছে। আজকে নির্বাচন নিয়ে তারা প্রহসন করছে। গাজীপুর নির্বাচন নিয়ে এমন একটা কাজ করল, যেটা জনগণ বুঝে নিয়েছে যে কারা করছে, কিভাবে করছে। খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আজকে প্রতিদিন আমাদের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। এমনকি এজেন্ট যারা হবেন. তাদেরকে পর্যন্ত গ্রেফতার করা হচ্ছে। সরকার পুলিশ দিয়ে ভোটের মাঠ দখল করে নিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুলের পরিচালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন-বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টারের সদস্য আলোকচিত্রী বাবুল তালুকদার প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

 অনুষ্ঠানে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ফরহাদ হোসেন আজাদ, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার ও শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন। পরে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলোকচিত্র প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন। গত ১০ মে খালেদা জিয়ার বিএনপির চেয়ারপারসন হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্তির ৩৪ বছর পূর্ণ হয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের পর ক্ষমতার পালাবদলের এক পর্যায়ে রাষ্ট্রক্ষমতায় আসেন সেনা কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান। ১৯৭৮ সালে তার তত্ত্বাবধানেই বিএনপির প্রতিষ্ঠা হয়। রাষ্ট্রপতি থাকাকালে ১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রামে একদল সেনা কর্মকর্তার হাতে নিহত হন জিয়াউর রহমান। এরপর দলের নেতা-কর্মীদের অনুরোধে গৃহবধূ থেকে রাজনীতিতে আসেন খালেদা জিয়া। ১৯৮৩ সালে তিনি দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বিচারপতি আবদুস সাত্তার দায়িত্ব থেকে অবসর নিলে ১৯৮৪ সালে ১০ মে বিএনপির চেয়ারপারসন নির্বাচিত হন খালেদা জিয়া। বেগম জিয়ার নেতৃত্বে জয়ী হয়ে বিএনপি তিনবার সরকার গঠন করে। এছাড়া দুই দফায় বিরোধী দলের নেতা ছিলেন তিনি। জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের সাজা নিয়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি আছেন খালেদা জিয়া।