* এডিসি আহত, ৬৯ জন আটক * হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলার প্রস্তুতি

পুলিশের প্রিজন ভ্যানে বিএনপির হামলা, আটক কর্মী ছিনতাই

পুলিশের প্রিজন ভ্যানে বিএনপির হামলা, আটক কর্মী ছিনতাই
পুলিশের প্রিজন ভ্যানে বিএনপির হামলা, আটক কর্মী ছিনতাই

রাজধানীর হাইকোর্ট এলাকার কদম ফোয়ারার মোড়ে বিএনপির মিছিল থেকে পুলিশের ওপর হামলা, ভাঙচুর ও প্রিজন ভ্যানের তালা ভেঙে আটক দুই কর্মীকে ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ৬৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  পুলিশ দাবি করেছে, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতে হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে  মঙ্গলবার বিকাল পৌনে চারটায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা মিছিল থেকে অতর্কিতে হামলা চালান। মিছিল থেকে পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছোড়া হয়। এতে রমনা বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) আশরাফুল আজিমের হাতের আঙুল ফেটে যায়। কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হন। তাদের হেলমেট ও রাইফেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কদম ফোয়ারার সামনে পুলিশের একটি প্রিজন ভ্যান ছিল। মিছিল থেকে কর্মীরা এসে ভ্যান ভাঙচুর করে আটক থাকা দুই কর্মীকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। সেই সঙ্গে দুই পুলিশের রাইফেল কেড়ে নিয়ে ভেঙে ফেলেন।

রমনা বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মিছিল পুলিশ সব সময় খুব ধৈর্য্যরে সঙ্গে সামাল দেয়। আজও (মঙ্গলবার) পুলিশ ধৈর্য্য ধরেছিল। বিনা উসকানিতে মিছিল থেকে পুলিশের ওপর হামলা করা হয়।’ রমনা বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার আজিমুল হক বলেন, ‘কদম ফোয়ারার সামনে খালেদা জিয়ার বহর থেকে একটি প্রিজন ভ্যানের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় বিএনপি নেতাকর্মীরা। ভাংচুরের ঘটনায় তাদের বাধা দিতে গেলে তারা পুলিশের উপর হামলা চালায় এবং ইট নিক্ষেপ করে। এতে আমিসহ অন্তত চারজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।’ প্রত্যক্ষদর্শীদের একটি সূত্র জানায়, পুলিশ প্রথমে হাইকোর্ট এলাকা থেকে বিএনপির দুই কর্মীকে আটক করে প্রিজন ভ্যানে তোলে। এরপর ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়ে ওই দুজনকে ছাড়িয়ে নেয়। এ সময় পুলিশেল সাথে তাদের সংঘর্ষ হয়। পরে পুলিশ ধথরপাকড় শুরু করে। শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, পুলিশের প্রিজন ভ্যান ভাংচুর, ইট নিক্ষেপ, পুলিশকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে। উল্লেখ্য, বেগম খালেদার হাজিরার দিন বরাবরই বিএনপির নেতা-কর্মীরা হাই কোর্ট থেকে শুরু করে বকশীবাজার এলাকায় জড়ো হয়ে আসছেন। তাদের সঙ্গে প্রায় প্রতি হাজিরার দিনই পুলিশের সংঘাত ঘটছিল। এর আগে গত ৩ জানুয়ারিও খালেদা আদালত থেকে ফেরার পথে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছিল বিএনপি নেতাকর্মীদের।