পরিবেশ বান্ধব পাটের পলিথিন

পরিবেশ বান্ধব পাটের পলিথিন

প্লাস্টিক ব্যাগের পরিবেশের ক্ষতিকর দিক বিবেচনায় এনে দেশে পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছেন সরকার। প্লাস্টিকের বিকল্প হিসেবে পাটের পলিথিন ব্যাগ নিয়ে এসেছে বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশন (বিজেএমসি)। নিষিদ্ধ হলেও বাজার থেকে পলিথিন ব্যাগ যেমন উঠে যায়নি, তেমনি পাটের ব্যাগও সেভাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি। তবে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় পাটের তৈরি পলিথিন ‘সোনালি ব্যাগ’ শিগগিরই বাণিজ্যিকভাবে বাজারে ছাড়া হবে। পাশাপাশি সোনালি আঁশের জনপ্রিয়তা বাড়াতে স্বাস্থ্য সম্মত পাট পাতা থেকে তৈরি চা বিক্রি ও প্রদর্শন করা হচ্ছে মেলায়। পাট থেকে পলিথিন ব্যাগ উদ্ভাবন করেন বাংলাদেশ জুটমিল করপোরেশনের বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা ড. মোবারক আহমদ খান। বিজেএমসির বিপণন সূত্র জানায়, পাটের সেলুলোজ থেকে তৈরি ব্যাগ সম্পূর্ণ পচনশীল ও পরিবেশ বান্ধব। এ পলিথিন ব্যাগ  ব্যবহার করার পর ফেলে দিলে ৫ ঘন্টা পর ধীরে ধীরে গলতে শুরু করে। ৫-৬ মাসের মধ্যে মাটিতে মিশে যায়। প্লাস্টিকের পলিথিনের চেয়ে অধিক কার্যকর এ ব্যাগে দেড়গুণ ভারি দ্রব্য বহন করা যাবে। খাদ্য দ্রব্য সংরক্ষণ করাও যাবে। ক্ষুদ্র পরিসরে ‘সোনালি ব্যাগ’ উৎপাদন শুরু হয়েছে। সূত্রটি বলছে তবে এখনও তা বাজারে বাণিজ্যিকভাবে আনা হয়নি। এ ব্যাগ বিদেশে রফতানির ব্যাপক সম্ভাবনাও রয়েছে। পাটের পলিথিন ব্যাগ ব্যবহারে পরিবেশ দূষণ, ভূমির উর্বরতা হ্রাস, শহরে, জলাবদ্ধতা সৃষ্টি সহ প্রভৃতি থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।