পরিকল্পিতভাবে সিইসিকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা হচ্ছে

পরিকল্পিতভাবে সিইসিকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা হচ্ছে

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ পরিকল্পিতভাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে (সিইসি) প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছেন।

মঙ্গলবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে আখাউড়া সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ শামসুজ্জামানের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আনিসুল হক বলেন, ‘সিইসি বিতর্কিত হওয়ার মতো এমন কোনো কাজ করেননি। তিনি অত্যন্ত সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন কমিশন পরিচালনা করছেন। তাদের কথাগুলো অমূলক।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্রের বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার পক্ষে মনোনয়ন নেওয়া হয়েছে। তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন কিনা এ ব্যাপারে আদালত সিদ্ধান্ত নেবেন। আদালতের দু’টি রায় রয়েছে। এই দুই রায়ের প্রেক্ষিতে আদালতই সিদ্ধান্ত নিবেন তিনি (খালেদা) নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কিনা। এখন পর্যন্ত আমার কাছে যতটুকু তথ্য আছে, সেটা হচ্ছে সাজা স্থগিত রাখার জন্য একটা দরখাস্ত করতে হয়। দরখাস্ত করার পর আদালত যদি মনে করেন সাজা স্থগিত থাকবে, যতদিন পর্যন্ত আপিল শুনানি না হবে। তাহলে নির্বাচন করতে পারবেন।’

তিনি বলেন, ‘যেহেতু সাজা স্থগিত রাখার দরখাস্ত দেওয়া হয় নাই সেহেতু আদালত আদৌ সাজা স্থগিত করবেন কি করবেন না সেটা এখনো জানা যায়নি। যতক্ষণ পর্যন্ত আদালত রায় না দিবেন ততক্ষণ পর্যন্ত খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।’

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক কাশেম ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. আব্দুল্লাহ ভূঁইয়া বাদল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন প্রমুখ।