নোয়াখালীতে দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নোয়াখালীতে দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নোয়াখালীর চাটখিল ও কবিরহাট উপজেলার পৃথক স্থান থেকে আকলিমা আক্তার কাকুলি (২৫) ও সামছুন নাহার সাকি (৩৫) নামের দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এর মধ্যে আকলিমা আক্তার কাকুলিকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ করেছে তার পরিবার। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছেন।

রোববার সকাল ও দুপুরে নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

তারা হলেন- চাটখিল উপজেলার নোয়াখলা ইউনিয়নের সাতরাপাড়া গ্রামের মামুন হোসেনের স্ত্রী ও সোনাইমুড়ী উপজেলার দেওটি ইউনিয়নের আব্দুল কাদেরের মেয়ে আকলিমা আক্তার কাকুলি এবং কবিরহাট উপজেলার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামের আব্দুস সাত্তারের স্ত্রী সামছুন নাহার সাকি।

স্থানীয়রা জানায়, শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কাকুলিদের ঘর থেকে শব্দ পেয়ে বাড়ির লোকজন ঘরে গিয়ে কাকুলির মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। পরে বিষয়টি থানায় অবগত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে। নিহতের পরিবারের অভিযোগ কাকুলিকে মারধরের পর গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে।

চাটখিল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সামছুদ্দিন জানান, নিহতের শরীরের কয়েকটি স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যার অভিযোগ করলেও ময়নাতদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

এদিকে, শনিবার দুপুরে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে কবিরহাট উপজেলার নলুয়া গ্রামে কীটনাশক পান করে সামছুন নাহার সাকি নামের এক গৃহবধূ। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

কবিরহাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মির্জা মোহাম্মদ হাছান বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।