নির্বাচনের নামে কোনো খেলায় বিএনপি নেই : নজরুল

নির্বাচনের নামে কোনো খেলায় বিএনপি নেই : নজরুল

নির্বাচনের নামে বিএনপি কোনো খেলায় অংশ নেবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, একটা গণতান্ত্রিক দল বা জোট হিসেবে আমরা নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতার হাত বদল চাই। আমরা নির্বাচন করতে চাই। কিন্তু নির্বাচনের নামে কোনো খেলায় আমরা যোগ দিতে চাই না। গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘দেশ বাঁচাও, মানুষ বাঁচাও আন্দোলন’র উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় দলের অবস্থান তুলে ধরে এসব কথা বলেন নজরুল ইসলাম। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস এবং দলের নেত্রী মেহেরুননেসা হকসহ অন্যদের মুক্তির দাবিতে এই আলোচনা সভা হয়। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি সর্বাগ্রে জানিয়ে বিএনপির এই নীতি-নির্ধারক বলেন, দেশের মধ্যে দু’জন ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার যোগ্য। একজন খালেদা জিয়া অপরজন শেখ হাসিনা। এর মধ্যে একজন প্রধানমন্ত্রী থেকে নির্বাচন করবেন, আরেকজন জেলে থেকে নির্বাচন করবেন- এটাকে তো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলা যায় না। আবার একজন সংসদ সদস্য থেকে নির্বাচন করবেন, আর আমরা এমপি না থেকে নির্বাচন করব-সেটাও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নয়। বিএনপি গণতন্ত্রের জন্য ছাড় দিতে প্রস্তুত বলেও জানান তিনি।

সংগঠনের সভাপতি কেএম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য রাখেন- ২০ দলীয় জোটের শরিক ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল, আবদুল আউয়াল খান, কেন্দ্রীয় নেতা হায়দার আলী লেলিন, ছাত্রদল নেত্রী আরিফা সুলতানা রুমা প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। এদিকে, সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে নিরাপদ সড়কের আন্দোলন থেকে গ্রেফতার শিক্ষার্থীদের মুক্তি দিয়ে তাদের নিয়মিত পড়াশোনার কাজ চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ দিতে সরকারকে সদয় হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, এখন শোকের মাস (আগস্ট) চলছে। শোকের মাসে জনগণের দুঃখ আর বাড়াবেন না। দয়া করে এই ছাত্রদেরকে মুক্তি দিয়ে, পড়াশোনায় নিয়মিত হওয়ার সুযোগ করে দিন। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারিদের মধ্যে যারা গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন, তাদের মুক্তির দাবিও জানান জাফরুল্লাহ চৌধুরী। গণমাধ্যমকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে এবং গ্রেফতার শিক্ষার্থীদের মুক্তির দাবিতে গণতান্ত্রিক সাংস্কৃতিক জোট ঢাকা মহানগর উত্তরের উদ্যোগে এই মানববন্ধন হয়।