নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবল গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবল গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জে এক গৃহবধূকে অচেতন করে ধর্ষণ এবং ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে কয়েক লাখ টাকা ও স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ডিএমপির নৌ-পুলিশের এক কনস্টেবল গ্রেপ্তার হয়েছেন।

সোমবার সকালে ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা করেন। এরপর জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)

বিকালে সাব্বির আহম্মেদ মেহেদী নামের ওই কনস্টেবলকে গ্রেপ্তার করে।

 নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আসাদুজ্জামান  বলেন, এই ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলাটি ডিবি তদন্ত করছে।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক এনামুল হক  বলেন, গৃহবধূর মামলায় কনস্টেবল সাব্বিরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার সাব্বির চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ মালিগাঁও এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে। তিনি নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকার মিজানুর রহমানের বাড়ির ভাড়াটিয়া। সাব্বির ঢাকা নৌ-পুলিশে কর্মরত।

মামলায় ওই গৃহবধূ বলেন, তার দুই মেয়েকে নিয়ে ঢাকার মতিঝিলে যাতায়াতের সূত্রে সাব্বিরের সঙ্গে তার পরিচয়। গত ৭ অগাস্ট সাব্বির তার মোবাইলে ফোন করে ‘জরুরি কথা’ বলতে আসার কথা জানান। তখন তিনি ছিলেন চাষাঢ়ায় তার ভাইয়ের বাসায়।

“তখন আমি আমার ভাইয়ের বাসায় আসতে বলি। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সাব্বির আমার ভাইয়ের বাসায় আসার সময় সঙ্গে একটি কোকাকোলার বোতল নিয়ে আসে। সে আমাকে কোকাকোলা খাওয়ানোর পর আমি অচেতন হয়ে পড়ি।”

বাসায় অন্য কেউ না থাকার সুযোগে কনস্টেবল মেহেদী তাকে ধর্ষণ এবং তার ছবি তুলে রাখেন বলে ওই গৃহবধূর অভিযোগ।

তিনি বলেন, “আমার জ্ঞান ফিরলে সাব্বির আমাকে হুমকি দিয়ে বলে, তোমার নোংরা ছবি আমার কাছে আছে। কাউকে জানালে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেব।”

ওই হুমকি দিয়ে এই পুলিশ কনস্টেবল আরও কয়েকবার বিভিন্ন স্থানে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন বলে ওই গৃহবধূর অভিযোগ।

মামলায় তিনি বলেন, এছাড়া ভয় দেখিয়ে নগদ দুই লাখ টাকা এবং স্বর্ণালংকারও হাতিয়ে নেয়।