নারায়ণগঞ্জে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ২০ মামলার আসামি নিহত

নারায়ণগঞ্জে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ২০ মামলার আসামি নিহত

নারায়ণগঞ্জ শহরে হত্যা ও মাদক মামলার এক আসামি কথিত বন্দুকযুদ্ধে র‌্যাবের গুলিতে নিহত হয়েছে।  রোববার ভোর ৪টার দিকে শহরের দেওভোগ শহীনগর এলাকায় গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে বলে র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিনের ভাষ্য।

নিহত রবিউল হাসান (৩৮) দেওভোগ এলাকার ইয়াছিন মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় হত্যার অভিযোগে তিনটি এবং মাদকের আইনের ২০টি মামলা রয়েছে। পুলিশের ‘শীর্ষ সন্ত্রাসীর’ তালিকাতেও তার নাম ছিল বলে র‌্যাবের দাবি।

র‌্যাব কর্মকর্তা আলেপ উদ্দিন বলেন, হাসানকে গ্রেপ্তার করতে ভোরে তার বাড়িতে অভিযানে যায় র‌্যাবের-১১ এর একটি দল।

“র‌্যাব সদস্যরা চারদিক থেকে ওই বাড়ি ঘিরে ফেললে দরজার ফুটো দিয়ে দেখে সে গুলি করে। র‌্যাবও তখন পাল্টা গুলি চালায়। গুলি করতে করতে দরজা ভেঙে র‌্যাব ভেতরে ঢুকে হাসানকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পায়।”

ওই অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক হাসানকে মৃত বলে ঘোষণা করেন বলে জানান আলেপ উদ্দিন।  

তিনি বলেন, এ অভিযানে র‌্যাবের দুই সদস্যও আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে চার রাউন্ড গুলিসহ একটি পিস্তল এবং ২৫০০ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

হাসানকে এর আগেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হয়েছিল জানিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তা আলেপ উদ্দিন বলেন, “তখনও সে গুলি করে পালিয়ে গিয়েছিল।”