নাটোরে রোহিঙ্গা নারী আটক

নাটোরে রোহিঙ্গা নারী আটক

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরে ভুয়া পরিচয় দিয়ে পাসপোর্ট করতে এসে এক রোহিঙ্গা নারী (১৯) জেলা গোয়েন্দা পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক ওই নারী রোহিঙ্গা বলে নিশ্চিত হয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গতকাল সোমবার দুপুর পর্যন্ত তাকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছিল। এ বাপারে মামলার প্রস্তুতিসহ আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। গতকাল রোববার দুপুর নাটোর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে আটক হন ওই নারী। তবে ঘটনার ব্যাপারে নিশ্চিত না হওয়ার কারণে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ বিষয়টি গোপন রেখেছিলেন।নাটোর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ডিবি) মোঃ সৈকত হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই নারীকে রোববার দুপুরের দিকে আটক করা হয়। তাকে গতকাল থেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও নাটোরে রোহিঙ্গা নারী আটক

আবেদন ফরমে লেখা তথ্যের  বাহিরে কোন কিছু বলতে পারছেন না। আবেদন ফরমে তার নাম সোমা খাতুন এবং বাবার নাম বদির উদ্দিন, গ্রাম দুর্গাপুর, থানা-লালপুর, জেলা নাটোর পরিচয় দিয়েছেন। তবে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে আটক নারী রোহিঙ্গা এবং তার সাথে বাবাসহ আরও দুইজন রোহিঙ্গা ছিলেন। তারা আহম্মদপুর এলাকার দুইজন দালালের মাধ্যমে লালপুর এলাকায় অবস্থান করে পাসপোর্ট করার চেষ্টা করেছিলেন। তাদেরও আটকের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলেই আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হবে।

নাটোর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের হকারী পরিচালক মানিক চন্দ্র দেবনাথ জানান, আবেদন পত্র জমা দেওয়ার সময় তাকে নাম পরিচয় জিজ্ঞাসা করা হয়। কিন্তু তিনি কিছুই বলতে পারছিলেন না। বিষয়টি সন্দেহ হলে দীর্ঘসময় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এতে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। এ সময় তার সাথে থাকা অপর দুইজন পুরুষও দ্রুত সটকে পড়েন। পরে বিষয়টি সন্দেহ হলে জেলা পুলিশ সুপারকে জানানো হলে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ পাসপোর্ট অফিসে আসেন। এ সময় ওই নারীকে তাদের কাছে সোপর্দ করা হয়। তবে নারী নিজেকে সোমা খাতুন, পিতা- মোঃ বদির উদ্দিন, গ্রাম-দুর্গাপুর, পোঃ-গোপালপুর, থানা-লালপুর, জেলা-নাটোর পরিচয় দিয়ে পাসপোর্ট করার জন্য আবেদন করেছিলেন।