নন্দীগ্রামে মহাসড়কে থ্রি হুইলার বন্ধে অভিযান : মামলা ২ শতাধিক

নন্দীগ্রামে মহাসড়কে থ্রি হুইলার বন্ধে অভিযান : মামলা ২ শতাধিক

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে থ্রি হুইলার বন্ধে অভিযান চলমান রয়েছে। চলতি জানুয়ারি মাসে ১৭ দিনে দুই শতাধিক যানবাহনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। প্রতিদিনই বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে অভিযান চালাচ্ছে কুন্দারহাট হাইওয়ে পুলিশ। পাশাপাশি নন্দীগ্রাম থানা পুলিশও থেমে নেই। থ্রি হুইলার- সিএনজি, ইজিবাইক, নসিমন-করিমনসহ দুই শতাধিক যানবাহনে মামলা দায়ের করায় মহাসড়কের থ্রি হুইলার চালকেরা দিশাহারা হয়ে পড়েছে। অনেকেই ক্ষোভে ফুঁসছে।প্রাপ্ততথ্যে জানা গেছে, কুন্দারহাট হাইওয়ে পুলিশ চলতি জানুয়ারি মাসে ১৭ দিনে ১৫৫টি যানবাহন আটক করে মামলা দায়ের করেছে। বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের রুপিহার, সিংজানী মোড়, কুন্দারহাটসহ ৪টি স্থানে প্রায় প্রতিদিনই চেকপোস্ট বসানো হয়।

 মহাসড়কে থ্রি হুইলার বন্ধে হাইওয়ে পুলিশের কঠোরতায় দিশাহারা হয়ে পড়েছে সিএনজি চালকেরা। সিএনজি চালক সিরাজুল ইসলাম জানান, নন্দীগ্রাম থেকে সিঙ্গেল সড়ক দিয়ে ফুলতলা পৌঁছাতে সময় লাগে প্রায় দেড়ঘন্টা। আর মহাসড়ক দিয়ে যেতে মাত্র আধাঘন্টা। দেরি হওয়ায় যাত্রীরা সিএনজিতে উঠতেই চায় না। পেটের দায়ে মহাসড়কে যাওয়ার চেষ্টা করে পুলিশের হাতে ধরা খেয়েছি। হাত-পা ধরে লাভ নেই, ধরছে আর মামলা দিচ্ছে। অনেক সিএনজি আটক করে মামলা দিয়েছে পুলিশ। ধরলে ছাড়েন না পুলিশ বাবুরা, মামলা দিয়েই খ্যান্ত নন, ফাঁড়িতে সিএনজি আটক করে রাখে। মামলা ভাঙানোর পর ছেড়ে দেন। মহাসড়কে সিএনজি চালকদের একটাই আতঙ্ক ‘পুলিশ’। মামলা আতঙ্কে দিশাহারা হয়ে পড়েছে থ্রি হুইলার চালকেরা।

 প্রতিনিয়ত মহাসড়কে টহলে নামে হাইওয়ে পুলিশের সদস্যরা। কুন্দারহাট হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ কাজল কুমার নন্দী জানান, ১৭ দিনে ১৫৫টি যানবাহনে মামলা দায়ের হয়েছে। মহাসড়কে থ্রি হুইলার নয়। থ্রি হুইলার চলাচলের জন্য সিঙ্গেল সড়ক রয়েছে। মহাসড়কে থ্রি হুইলার চলাচল করতে দেয়া হবে না। যেই হোক, থ্রি হুইলার মহাসড়কে উঠবে না। এদিকে, নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক বলেন, নসিমন-করিমনসহ ১৭ দিনে ৪৮টি যানবাহনে মামলা দায়ের হয়েছে। ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন যানবাহন ধরতে চকপোস্ট বসানো হয়। এগুলো কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি অবৈধ যানবাহনের মালিক ও চালকদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।