নন-এমপিও শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট অব্যাহত

নন-এমপিও শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট অব্যাহত

স্টাফ রিপোর্টার : এমপিও ভুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট চলছে। আজ শনিবার হবে অবস্থান কর্মসূচির পঞ্চম দিন। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের আহবানে এমপিও নীতিমালা সংশোধন, স্তরভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল ও স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সব প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তি করার দাবিতে গত চার দিন ধরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শিক্ষক-কর্মচারীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। গত মঙ্গল ও বুধবার দুইদিন টানা অবস্থানের পর কর্মসূচির তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষকগণ প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করে নীতিমালার অসঙ্গতি ও বৈষম্যসহ সার্বিক বিষয় তুলে ধরার উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে পদযাত্রা শুরু করেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে কদম ফোয়ারার সামনে পৌঁছলেই পুলিশ সে পদযাত্রার গতি রোধ করে।

পরে তারা জাতীয় ঈদগাহের সামনে কিছুক্ষণ অবস্থান নিয়ে আবারো প্রেস ক্লাবের সামনে আগের জায়গায় অবস্থান কর্মসূচি পালনে বসেন। এছাড়াও পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পর থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচিতে যাওয়ার কথা ছিল শিক্ষক-কর্মচারিদের। কিন্তু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির আশ্বাসে তারা আমরণ কর্মসূচি আগামী রোববার পর্যন্ত স্থগিত করেন। তবে অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গতকাল সন্ধ্যায় শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের নেতাদের সাথে টেলিফোনে কথা বলেছেন। নন-এমপিও ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় বলেন, ভারতে অবস্থানরত শিক্ষামন্ত্রীর সাথে ফোনে কথা হয়েছে।

তার আশ্বাসে আমরা আগামী ২০ অক্টোবর পর্যন্ত আমরণ অনশন কর্মসূচি স্থগিত করেছি। এ সময়ের মধ্যে শিক্ষামন্ত্রীর সাথে ফলপসূ আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। তা নাহলে ২১ অক্টোবর থেকে আবার আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করা হবে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, ফেডারেশন সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলারের সাথেও শিক্ষামন্ত্রীর কথা হয়েছে। স্বীকৃতি পাওয়া সব বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে এবং এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ চেয়ে গত মঙ্গলবার থেকে আন্দোলন শুরু করেছেন এমপিওভুক্ত নয়- এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের কর্মসূচি চলকেব বলে জানেিয়ছেন শিক্ষকনেতাগণ।