নওগাঁয় যুবককে উল্টো করে ঝুলিয়ে পেটানোর ভিডিও : গ্রেফতার ১

নওগাঁয় যুবককে উল্টো করে ঝুলিয়ে পেটানোর ভিডিও : গ্রেফতার ১

নওগাঁ প্রতিনিধি : পকেট মারার অপবাদ দিয়ে নওগাঁর পতœীতলা উপজেলায় এক যুবককে উল্টো করে ঝুলিয়ে বেধড়ক পেটানো হয়েছে। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। গত শুক্রবার উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার ভিডিওটি আদনান রহমান নামের এক ব্যক্তির ফেসবুক আইডিতে সন্ধ্যা ৭টার দিকে প্রকাশ (আপলোড) করা হয়েছে। গতকাল  রোববার স্থানীয় মিডিয়া কর্মীরা আক্রন্ত (ক্ষতিগ্রস্ত) ওই যুবকের পরিচয় শনাক্ত করেছেন। যে যুবককে পিটানো হয়েছে  সে নওগাঁর পতœীতলা উপজেলার মাটিন্দর ইউনিয়নের শিবপুর সরকারপাড়ার মৃত. আজিম উদ্দীনের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩০)। এদিকে ছবি দেখে সনাক্ত করে নূরুন নবী নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পতœীতলা থানা পুলিশ। গত শুক্রবার ছিল উপজেলার মধইল হাটের দিন।

 সেখানে ওই যুবক একজনের পকেট মেরেছে এমন অভিযোগ তোলা হয়। এরপর সেখানে তাকে উত্তম মধ্যম দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। পরবর্তীতে তাকে কয়েকজন মিলে আটক করে আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে নিয়ে অমানষিক নির্যাতন চালায়। আদনান রহমান তার আইডিতে ক্যাপশন লিখেছেন- ‘নওগাঁ জেলার পত্মীতলার আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এভাবেই বেধড়ক পেটানা হয় পকেটমারকে। আইনের হাতে তুলে না দিয়ে এভাবে অমানুষের মতো পিটানো কখনই যুক্তিসংগত হতে পারে না।’ ভিডিওতে দেখা যায়, ওই যুবকের প্রথম দুই পা বাঁধে এক ব্যক্তি। এরপর দুই পায়ের মাঝ দিয়ে বাঁশ ঢুকিয়ে দু’জনে কাঁধে নিয়ে যুবককে উল্টো করে উঁচু করে ঝুঁলিয়ে রাখে। কালো গেঞ্জি পরিহিত অপর এক ব্যক্তি লাঠি দিয়ে যুবকের পায়ের তালুতে বেধড়ক পেটাতে থাকে। এক পর্যায় ওই যুবক লাঠির আঘাতের যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে নির্যাতনকারীর পা জড়িয়ে ধরে কাকুতি মিনতি করেন।

এরপরও ওই লোকটি তাকে পেটাতে থাকে। আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন জানান, শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ বন্ধ থাকে। যুবককে পিটানোর পর ভিডিও করে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে তা লোকমুখে শুনেছেন। পতœীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাজহারুল ইসলাম  বলেন, ভিডিওটি দেখে ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজ খবর নেয়া হয়। এরপর ভিডিও  দেখে সনাক্ত করে যে ব্যক্তি ওই যুবককে পিটাচ্ছিল তাকে তার গ্রামের বাড়ি আকবরপুর ইউনিয়নের ভগবানপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে আজ (রোববার) বেলা ১২টার দিকে। সে আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য সেবা সেন্টারের ইউডিসি নূরুন নবী। ওসি বিকেল সাড়ে চারটর দিকে মোবাইল ফোনে জানান ভিকটিমের ঠিকানা পাওয়া গেছে তাকে উদ্ধার করার জন্য  সেই ঠিকানায় যাচ্ছেন তিনি। তিনি আরও জানান এরসাথে আরও যারা জড়িত তাদেরও গ্রেফতার করা হবে।