নওগাঁয় মধ্যযুগীয় কায়দায় গাছে বেঁধে দম্পতিকে নির্যাতন : গ্রেফতার ৬

নওগাঁয় মধ্যযুগীয় কায়দায় গাছে বেঁধে দম্পতিকে নির্যাতন : গ্রেফতার ৬

নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর পোরশা উপজেলায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে অনৈতিক কাজের অভিযোগ এনে এক দম্পতিকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে পোরশা থানায় মামলা হলে পুলিশ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ৩৩ জনের মধ্যে ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে। নির্যাতনের শিকার দম্পতি উপজেলার ঘাটনগর ইউনিয়নের মোল্লাপাড়া গ্রামের স্বামী বাবু ও স্ত্রী সুলতানা বেগম। গত ১৫ জুন (শুক্রবার) গ্রামে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এ মামলায় আটককৃত ৬ জনের মধ্যে ঘটনার মূলহোতা ওই গ্রামের মৃত শফির উদ্দিনের ছেলে আমিনুর ইসলাম ও তার ভাই আনিছুর রহমান রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, স্ত্রীকে দিয়ে অনৈতিক কাজের অভিযোগ এনে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঈদের দিন (১৫ জুন) দুপুরে গ্রামের আমিনুর ইসলামের নেতৃত্বে মহির উদ্দিন ও নাসরিন বেগমসহ ১২/১৫ জন নারী-পুরুষ বাবু ও তার স্ত্রী সুলতানাকে তাদের বাড়ি থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে নিয়ে আসে। এ সময় তাদের বাড়িতে ভাঙচুর করা হয়। এরপর দরিদ্র এই দম্পতিকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় লাঠি দিয়ে পিটিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়। প্রভাবশালীদের দাপটে এ সময় তাদের উদ্ধারের জন্য গ্রামের কেউ এগিয়ে আসার সাহস পায়নি। নির্যাতনের পর নির্যাতনকারীরা  সেখান থেকে চলে  গেলে তাদের উদ্ধার করে জেলার মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। ভুক্তভোগীরা থানা পুলিশকে না জানিয়ে নওগাঁ আদালতে মামলা দায়ের করেন।

মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনার ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে প্রশাসনের নজরে আসে। এরপর থানা পুলিশ ওই গ্রামে গিয়ে বিষয়টি অবগত হয়। পুলিশ মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ভুক্তভোগীদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। গত বুধবার (২৭ জুন) রাত ১০টায় ভুক্তভোগী বাবু বাদী হয়ে ৩৩ জনকে আসামি করে  পোরশা থানায় মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে ঘাটনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বজলুর রশিদ বলেন, শুনেছি বাবু তার স্ত্রী সুলতানাকে দিয়ে এলাকায় অনৈতিক কার্যক্রম করত। এ নিয়ে এলাকাবাসীর সাথে দ্বন্দ্ব হয়। ঘটনাক্রমে এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে স্বামী-স্ত্রীকে মারপিট করে। তবে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা ঠিক হয়নি। পোরশা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি জানার পর তাদের উদ্ধার করা হয়। বাবু গত ২৭ জুন রাতে থানায় মামলা করেছেন। গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ঘটনার মূলহোতাসহ ৬ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে।