ধোনির সঙ্গে আমার তুলনা বাড়াবাড়ি : আকবর আলি

ধোনির সঙ্গে আমার তুলনা বাড়াবাড়ি : আকবর আলি

তার দল এখন যুব ক্রিকেটে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। তাদের নিয়ে গোটা জাতি আজ গর্বিত। প্রিয় যুবাদের এমন উদ্ভাসিত সাফল্যে সারাদেশে আনন্দের জোয়ার বইছে।

যুবাদের এমন অসামান্য সাফল্যের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সবাই। দলের পাশাপাশি অধিনায়ক আকবর আলিও ‘হাইলাইটেড।’ সেটা চরম প্রতিকূল অবস্থায় চাপের মুখে শক্তহাতে হাল ধরে ফাইনালে ঠান্ডা মাথায় দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেয়ার জন্য।
 
১৭৮ রান করতে গিয়ে দল যখন ১৪৩ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে হাবুডুবু খাচ্ছিল, ঠিক তখন অধিনায়ক আকবর আলি শক্তহাতে হাল ধরে দলকে লক্ষ্যে পৌঁছে দিয়েছেন। ওই ঠান্ডা মাথার ম্যাচ জেতানো ব্যাটিংটা আকবর আলিকে অন্যভাবে উপস্থাপন করেছে।

অনেকেই তাকে ‘কুল ফিনিশার’ হিসেবে ভাবতে শুরু করেছেন। কেই কেউ তার মাঝে মহেন্দ্র সিং ধোনির ছায়া খুঁজে বেড়াচ্ছেন। কারও কারও মত আকবর আলির মাঝে আছে বড় ফিনিশার হওয়ার সব রকম উপাদান বিদ্যমান।

আজ প্রেস কনফারেন্সেও এক সাংবাদিক প্রশ্ন করলেন, ‘আচ্ছা আকবর আলি আপনার ঠান্ডা মাথায় ফাইনাল জেতানো ব্যাটিং দেখে মহেন্দ্র সিং ধোনির কথা মনে হচ্ছে। আপনি এটাকে কীভাবে দেখেন? ভারতের মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে তুলনাটাকে কীভাবে দেখছেন?


আকবর আলির সোজাসাপটা জবাব, না না। এটা বাড়াবাড়ি। মহেন্দ্র সিং ধোনি অনেক বড় মাপের ক্রিকেটার। বড় তারকা। তার সঙ্গে আমার তুলনার প্রশ্নই আসে না।

এদিকে আকবর আলির প্রশংসায় পঞ্চমুখ কোচ নাভেদ নাওয়াজ। তার ধারণা, আকবর আলির মাঝে আছে ভালো ফিনিশার হওয়ার সব রকম উপাদান ও যোগ্যতা রয়েছে। এ লঙ্কানের মূল্যায়ন, আকবর এমনিতে ব্যাট করে সাত নম্বরে। তাই তার ব্যাটিংয়ের সুযোগ মেলে কম। এবারের বিশ্বকাপেও সে অর্থে সে সুযোগ পায়নি।

কিন্তু ফাইনালে সুযোগ পেয়ে দল জিতিয়ে বিজয়ীর বেশে মাঠ ছেড়ে আকবর প্রমাণ করেছে ঠান্ডা মাথায় দল জেতানোর সামর্থ্য আছে তার পুরোপুরি।