দোয়েলের ২২ হাজার টাকার ল্যাপটপ ১৪ হাজারে

দোয়েলের ২২ হাজার টাকার ল্যাপটপ ১৪ হাজারে

শিক্ষার্থীসহ সাধারণ প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ক্রয়ক্ষমতার বিষয়টি বিবেচনা করে দোয়েল ফ্রিডম কিউএন৪২ ব্র্যান্ডের ২২ হাজার টাকা মূল্যের দোয়েল ল্যাপটপ বিক্রয়োত্তর সেবার গ্যারান্টিসহ ১৪ হাজার ৯৯৯ টাকায় এখন থেকে পাওয়া যাবে। 


মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে কম্পিউটার সিটিতে টেশিস শোরুম উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ফিতা কেটে টেশিস শোরুমটির উদ্বোধন করেন।

দোয়েল ফ্রিডম ব্র্যান্ডের ল্যাপটপের বিস্তারিত স্পেসিফিকেশন হচ্ছে, প্রসেসর: ইনটেল পেন্টিয়াম কোয়াড কোর এন ৪২০০, ১.১ গিগাহার্জ আপটু ২.৪ গিগাহার্জ, কেছি ২এমবি। ডিসপ্লে ১৪ ইঞ্চি এইচডি ব্যাক লাইট। র‌্যাম ৪জি ডিডিআর৩, এইচডিডি ১টিভি এবং ব্যাটারি ৪ সেল লায়ন।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন কম্পিউটার ও ল্যাপটপ উৎপাদনই করছে না, বরং নাইজেরিয়াসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে কম্পিউটার ও ল্যাপটপ রপ্তানি করছে।

সাশ্রয়ী দামে সবার জন্য গুণগত মানের ডিজিটাল ডিভাইস নিশ্চিত করার উদ্যোগের অংশ হিসেবে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে পর্যায়ক্রমে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন টেশিস উৎপাদিত দোয়েল ল্যাপটপ সহজলভ্য করতে শোরুম ও সার্ভিস সেন্টার খোলা হবে বলে জানান মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস এবং টেশিস ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফকরুল হায়দার চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ অগ্রযাত্রা আরও বেগবান করতে এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠী যাতে সাশ্রয়ী দামে ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করতে পারেন সে লক্ষ্যে সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে। 

তিনি বলেন, প্রযুক্তির সুফল প্রতিটি মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে সরকার বদ্ধপরিকর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ১৯৯৭ সালে কম্পিউটারের ওপর থেকে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহার করে দেশে প্রযুক্তি বিপ্লবের যাত্রা শুরু করেন। ২০০৮ সালে তারই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পরিকল্পনা রূপকল্প ২০২১ বিশ্বে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এসবেরই ধারাবাহিকতায় বিশ্বে আজ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল।