দেশে নিরাপত্তা হুমকি, ইয়েমেন থেকে সৈন্য ফিরিয়ে আনছে আমিরাত

দেশে নিরাপত্তা হুমকি, ইয়েমেন থেকে সৈন্য ফিরিয়ে আনছে আমিরাত

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেন থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে দেশটিতে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের হয়ে লড়াইরত সংযুক্ত আরব আমিরাত। সোমবার আমিরাত বলছে, ইয়েমেনে সৈন্য কমিয়ে আনা হবে। একই সঙ্গে ‘মিলিটারি ফার্স্ট কৌশল’ থেকে বেরিয়ে ‘সবার আগে শান্তি কৌশল’র দিকে অগ্রসর হবে তারা।

পশ্চিমা বিশ্ব সমর্থিত সৌদি নেতৃত্বাধীন সুন্নি সামরিক জোটের নেতৃস্থানীয় সদস্য হিসেবে ইয়েমেনে ইরান সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ইরান এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সাম্প্রতিক উত্তেজনায় দেশের ভেতরে নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে হুমকি দেখা দেয়ায় ইয়েমেন থেকে সৈন্য কমিয়ে আনছে আমিরাত।


আরব উপসাগরীয় অঞ্চলের এই দেশটি ইতোমধ্যে ইয়েমেনের দক্ষিণাঞ্চলের বন্দরনগরী এডেন ও পশ্চিমের উপকূলীয় অঞ্চল থেকে কিছু সৈন্য প্রত্যাহার করে নিয়েছে। যদিও আমিরাত বলছে, আন্তর্জাতিক বিশ্ব সমর্থিত ইয়েমেনের পলাতক প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মনসুর আল হাদির প্রতি তাদের সমর্থন অব্যাহত রাখবে।

আরও পড়ুন : হোয়াইট হাউসে ঢুকে পড়ল বৃষ্টির পানি

আমিরাতের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে রয়টার্সকে বলেছেন, ‘ইয়েমেন থেকে সৈন্য কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত একেবারে শেষ মুহূর্তে এসে নেয়া হয়নি। রিয়াদের সঙ্গে ব্যাপকভাবে আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

‘আমাদের আলোচনা শেষ হয়েছে। সৈন্য সংখ্যা কমিয়ে পুনরায় মোতায়েনের ব্যাপারে এক বছর ধরে আলোচনা চলছে। গত বছরের ডিসেম্বরে স্টকহোম চুক্তির পর সৈন্যসংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছিল।’

আমিরাতের সৈন্য ইয়েমেন ছাড়লে দেশটিতে শূন্যতা তৈরি হবে কি-না; এমন এক প্রশ্নের জবাবে ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ইয়েমেনে শূন্যতা তৈরি হওয়া নিয়ে আমরা চিন্তিত নই। কারণে আমরা মোট ৯০ হাজার ইয়েমেনি সৈন্যকে প্রশিক্ষণ দিয়েছি। ইয়েমেনে এটাই আমাদের বড় সফলতা।