দুই-তিন দিনের মধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চূড়ান্ত : কাদের

দুই-তিন দিনের মধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চূড়ান্ত : কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর তালিকা চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল শুক্রবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, দুই-তিন দিনের মধ্যে মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হবে। এক সপ্তাহের মধ্যে অ্যালায়েন্সের (জোট) সঙ্গে আসন ভাগাভাগীর কাজ শেষ হবে। জেতার সম্ভাবনা আছে এমন প্রার্থীকেই মনোনয়ন দেওয়া হবে। হারের রিস্ক আমরা নেব না। তিনি বলেন, আমাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি প্রায় শেষ। দেশি-বিদেশি সব সমীক্ষা ও জরিপে দেখা গেছে শেখ হাসিনা জনপ্রিয়তার তুঙ্গে অবস্থান করছেন। তিনি বলেন, সব জরিপে আওয়ামী লীগ এগিয়ে আছে। আমি পাঁচ-ছয়টি জরিপ রিপোর্ট স্টাডি করেছি। আমাদের যারা প্রতিপক্ষ তাদের অবস্থান নিয়েও জরিপ করা হয়েছে।

 যেসব এলাকায় আমরা পিছিয়ে আছি, সেসব নির্বাচনী এলাকাতেও আমরা গেছি। বিএনপির সঙ্গে জোটবদ্ধ ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের ইঙ্গিত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ও ছদ্মবেশী মুক্তিযোদ্ধারা এখন বিএনপির ধানের শীষে জোট বেঁধেছে। যারা এতোদিন গণতন্ত্রের বেশে ছিল, তারা ছদ্মবেশী। তারা এতোদিন মুক্তিযুদ্ধের নানা বুলি ছড়িয়েছিল। তারা মুক্তিযুদ্ধেও ছিল, ছদ্মবেশী মুক্তিযোদ্ধা। তারা নির্বাচনে জেতার জন্য, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে আঁতাত করেছে। তাদের সবার পরিচয় সাম্প্রদায়িক অপশক্তি। আওয়ামী লীগ নির্বাচন কমিশনকে ব্যবহার করছে, বিএনপি’র এমন অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, নিজেদের জনসমর্থন নেই বুঝতে পেরে তারা বেপরোয়া হয়ে গেছে।

 হতাশা থেকে তারা বেপরোয়া বক্তব্য দিচ্ছে। বিএনপি নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগুন দিয়ে পুলিশের গাড়ি পুড়িয়ে ফেলবে, ভাঙচুর করবে, ২০ জন পুলিশকে আহত করে হাসপাতালে পাঠাবে, এসব অপকর্ম, সন্ত্রাস, সহিংসতার কাজ কি বিনা শাস্তিতে ঢাকা পড়ে যাবে? তফসিল ঘোষণার পর তারা এই দুঃসাহস কীভাবে দেখায়? তিনি বলেন, পল্টনে পুলিশের ওপর হামলা করে প্রমাণ করেছে, তারা তাদের পুরানো পথ, আগুন সন্ত্রাসের পথ, সেই পথ ধরে এগিয়ে যেতে চায়। কারণ তারা জানে বাংলাদেশের জনগণের সমর্থন তাদের পক্ষে নেই। কাদের বলেন, পুলিশ কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করছে না। সরকারি দল হিসেবে আমরা অনেক কিছু সহ্য করে যাচ্ছি। তারা যেন আমাদের সহনশীলতাকে দুর্বলতা না ভাবে।