দুই সিটির ভোটারদের ভয় দেখাতেই ঢালাও গ্রেফতার : রিজভী

দুই সিটির ভোটারদের ভয় দেখাতেই ঢালাও গ্রেফতার : রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে ভোটারদের ভয়-ভীতি দেখাতেই বিরোধী নেতা-কর্মীদের ঢালাওভাবে গ্রেফতার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। অন্যদিকে, কারাবন্দি খালেদা জিয়ার ক্রমাবনতিশীল শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা উপহাস, তাচ্ছিল্য ও মশকরা শুরু করেছেন বলেও অভিযোগ করেছে দলটি।

সোমবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, দুই সিটি নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে এবং নেতা-কর্মী ও সাধারণ ভোটারদের মাঝে ভীতি ছড়াতেই গত রোববার ঢাকা মহানগর দক্ষিণের জ্যেষ্ঠ নেতাদের ব্যাপকভাবে আটক করা হয়েছে। এছাড়া গাজীপুরে বিএনপির প্রার্থীকে দলীয় সমর্থন দেওয়ার পরপরই জামায়াতে ইসলামীর মেয়রপ্রার্থীসহ ৪৫জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এটা কিসের আলামত? এটা কিসের নমুনা? বিএনপির এই নেতা বলেন, ক্ষমতাসীনরা একটা শ্মশানের ভূমি করতে চান গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনী এলাকাকে।

সেখানে মানুষের কোনো আওয়াজ থাকবে না, আওয়াজ থাকবে শুধু আওয়ামী সন্ত্রাসী ও তাদের সহযোগী আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বন্দুকের- এটাই হচ্ছে তাদের পরিকল্পনা। এ রকম পরিস্থিতিতে দুই সিটিতে নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে না মন্তব্য করে নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশে রিজভী বলেন, সেখানে সন্ত্রাসীদের প্রভাবমুক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে অবশ্যই সেনাবাহিনীকে মোতায়েন করতে হবে। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে তাকে ‘অপপ্রচার আর কুৎসা রটনার কোরাস দলের কান্ডারি’ বলে অভিহিত করেন রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে সরকার নিশ্চুপ-নির্বাক থেকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে দিয়ে ঠাট্টা-তামাশা করাচ্ছে। এটা নিষ্ঠুর উপহাস। আবারো অসুস্থ খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে সুচিকিৎসার দাবিও জানান রিজভী। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন, শ্রমিক দলের নুরুল ইসলাম খান নাসিম, মোস্তাফিজুল করিম মজুমদার, মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।