দুই নয়, গেইলকে ৫ ম্যাচের জন্য পেতে পারে চট্টগ্রাম

দুই নয়, গেইলকে ৫ ম্যাচের জন্য পেতে পারে চট্টগ্রাম

নিষেধাজ্ঞার কারণে নেই বিশ্ব টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আসছেন না গতবার মাঠ মাতিয়ে যাওয়া এবি ডি ভিলিয়ার্স, ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথরা। যার ফলে বড় তারকার কমতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের এবারের আসরে

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বিশ্ব মাত করা পারফরমারদের মধ্যে আছেন কেবল আন্দ্রে রাসেল। আশার কথা, এবার রাজশাহী রয়্যালসের জার্সি গায়ে প্রথম ম্যাচ থেকেই খেলবেন রাসেল। প্রথমবারের মতো অধিনায়কত্বও করবেন বিপিএলে।
খুব স্বাভাবিকভাবেই তাই প্রশ্ন চলে আসছে, ক্রিস গেইলের কী হবে? তিনি কি খেলবেন? এবারের বিপিএল কি পাবে গেইলকে? আগেই খবর বেরিয়েছে, ৪ জানুয়ারির পর গেইলকে পেতে পারে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। সেই তারিখের পর অবস্থা বুঝেই ব্যবস্থা নেবে টিম ম্যানেজম্যান্ট।

তবে শেষ খবর হলো, গেইলকে পেতে মুখিয়ে আছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সও। তাদের মধ্যে কথাবার্তাও চূড়ান্ত হয়ে গেছে। সবকিছু ঠিক থাকলে হয়তো গেইল ৪ জানুয়ারির পর আসবেন। তবে সেই আসার আগে ‘যদি-তবে’ আছে। প্রথম কথা হলো, ৪ জানুয়ারির পর চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের খেলা থাকবে মাত্র ২টি।

তাদের যদি সেরা চারে খেলার মতো অবস্থা থাকে কিংবা গেইল ম্যাজিকে শেষ দুই ম্যাচ জিতে প্লে’অফে জায়গা পাওয়ার মতো সুযোগ থাকে- তাহলে তারা এই সুযোগটিও নেবে। আর তা হয়ে গেলে অনিবার্যভাবেই প্লে’অফ ও ফাইনালসহ আরও ৩ ম্যাচ খেলার সুযোগ থাকবে।

কাজেই, গেইলের আসা নির্ভর করছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের লিগ টেবিলের অবস্থার কথা। ওপরের দিকে থাকলে তো কথাই নেই, মাঝামাঝি থাকলেও হয়তো বিপিএলের শেষদিকে দেখার সুযোগ মিলবে এ ভয়ঙ্কর উইলোবাজকে।


গেইলের আসা প্রসঙ্গে আলাপে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের টিম ডিরেক্টর জালাল ইউনুস জানান, ‘গেইলের সঙ্গে কথাবার্তা হয়ে গেছে। হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি কাটিয়ে তার মাঠে ফিরতে ফিরতে ৪ জানুয়ারি। এর আগে আসলে তার পক্ষে খেলা সম্ভব নয়। কাজেই আমরা ৪ জানুয়ারির পর তাকে প্রাথমিক অবস্থায় ২ ম্যাচের জন্য এবং পরে প্লে’অফ ও ফাইনালে উঠলে তাকেও রাখার চুক্তি করেছি। আমাদের পরিস্থিতির চাহিদা মোতাবেকই গেইলকে আনবো।’