দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি: খালেদাকে ১৩ মার্চ পর্যন্ত জামিন

দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি: খালেদাকে ১৩ মার্চ পর্যন্ত জামিন

জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় যুক্তিতর্কের শুনানির জন্য ১৩ মার্চ পরবর্তী তারিখ রেখে ওই সময় পর্যন্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়িয়েছে আদালত।এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজায় কারাবন্দি খালেদার আইনজীবীদের আবেদনে ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান সোমবার এ আদেশ দেন।

একই আদালত গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠান।

ওই মামলায় খালেদার জিয়ার আপিল হাই কোর্ট শুনানির জন্য গ্রহণ করলেও তাকে জামিন দেওয়া হবে কি না- তা জানা যাবে নিম্ন আদালত থেকে এতিমখানা দুর্নীতি মামলার নথি হাই কোর্টে পৌঁছানোর পর।

বিএনপিনেত্রীর অন্যতম আইনজীবী নুরুজ্জামান তপন  বলেন, “জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলায় যুক্তিতর্কের শুনানির জন্য আজ জজ আদালত ১৩ ও ১৪ মার্চ যুক্তিতর্কের পরবর্তী তারিখ ঠিক করে দিয়েছে। খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে ১৩ তারিখ পর্যন্ত।

“তিনি এর মধ্যে এতিমখানা মামলায় জামিন পেলে ওইদিন নিজেই আদালতে যেতে পারবেন। আর তা না হলে দাতব্য ট্রাস্প মামলায় তাকে হাজির করার জন্য তখন আদেশ দিতে পারেন বিচারক।”

জিয়া দাতব্য ট্রাস্টের নামে আসা ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ অগাস্ট তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করে দুদক। তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ চার জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

খালেদা জিয়ার একান্ত রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, বিআইডব্লিউটিএয়ের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খানও এ মামলায় আসামি।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এতিমখানা দুর্নীতি ও দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতিসহ মোট ৩৪টি মামলা রয়েছে দেশের বিভিন্ন আদালতে।