তিনি ফিরে আসুন সুস্থ হয়ে...

তিনি ফিরে আসুন সুস্থ হয়ে...

স্টাফ রিপোর্টার : ‘একজন আমজাদ হোসেন আমাদের চলচ্চিত্রের গর্ব। ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে তার চিকিৎসা শুরু হয়েছে গতকাল রাত থেকেই। মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি তিনি যেন তাকে সুস্থাবস্থায় আমাদের মাঝে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চলচ্চিত্র পরিবার আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ যে আমজাদ ভাইয়ের ভীষণ অসুস্থতার এই সময়ে সম্পূর্ণভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে পাশে থাকার জন্য। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই উদারতার কথা, চলচ্চিত্র পরিবারের প্রতি তার ভালোবাসার কথা আজীবন চলচ্চিত্র পরিবার শ্রদ্ধার সাথে মনে রাখবে। তিনি সত্যিই চলচ্চিত্র বান্ধব একজন প্রধানমন্ত্রী। মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি তিনিও যেন সবসময় সুস্থ থাকেন ভালো থাকেন।’ কথাগুলো এক নিঃশ্বাসে বলেগেলেন জনপ্রিয় নায়ক ওমরসানী। ওমরসানী বলেন, আমাদের চলচ্চিত্র পরিবারের আরেক বটবৃক্ষ ছিলেন প্রয়াত বরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম। তিনিও কয়েকবছর আগে আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। তার কিছুদিন পর চলেগেলেন নায়ক রাজ রাজ্জাক। এখন আবার আমাদের দোয়ার মাঝে আছেন আমাদের প্রিয় আমজাদ ভাই। আমজাদ ভাই এদেশের চলচ্চিত্রের এমন একজন চলচ্চিত্রকার যার কারণে এই দেশের চলচ্চিত্র সমৃদ্ধ হয়েছে অনেক। তিনি আমাদেরকে জীবন ঘনিষ্ঠ সিনেমা উপহার দিয়েছেন।

 আমজাদ ভাই আমাকে এবং আমার স্ত্রী মৌসুমীকে খুবই ¯েœহ করেন। আমরা দু’জনই মনেপ্রাণে দোয়া করছি আল্লাহ যেন আমজাদ ভাইকে দ্রুত সুস্থ করে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। ’  গত মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সাজ্জাদ হোসেন দোদুল এবং তার ছোট ভাই সোহেল আরমান আমজাদ হোসেনকে নিয়ে ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে পৌঁছান। এরপর থেকেই তার চিকিৎসা শুরু হয়ে গেছে। গত ১৮ই নভেম্বর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হওয়ায় ঢাকার তেজগাঁওয়ের ইমপালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আমজাদ হোসেনকে। হাসপাতালে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে(আইসিইউ) রাখা হয়। শুরু থেকেই তাকে কৃত্রিম উপায়ে শ্বাস-প্রশ্বাস দিয়ে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে। বাংলাদেশের খ্যাতিমান এই নির্মাতার অসুস্থতার খবর শুনে তার চিকিৎসার দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি উন্নত চিকিৎসার খরচ বাবদ ২০ লাখ টাকা এবং ব্যাংককে নিয়ে যাওয়ার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া বাবদ ২২ লাখ ৩৫ হাজার টাকার চেক পরিবারের হাতে তুলে দেন। প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে এ চেকগুলি গ্রহণ করেন আমজাদ হোসেনের ছোট ছেলে সোহেল আরমান। সোহেল আরমান বলেন,  আমাদের সবার প্রিয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভীষণ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। এর মাধ্যমে বাবাকে যে সম্মান দেওয়া হলো, তা আজীবন স্মরণ রাখব। আর দেশবাসীর কাছেও বাবার সুস্থতার জন্য দোয়া চাই।