তিন দশকের মধ্যে চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি সর্বনিম্ন

তিন দশকের মধ্যে চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি সর্বনিম্ন

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য যুদ্ধের কারণে বিশ্ব অর্থনীতির ‘সুপার পাওয়ার’ হিসেবে পরিচিত চীনের চলতি বছরের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি গত ত্রিশ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। এই বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে চীনের প্রবৃদ্ধির হার প্রত্যাশার চেয়ে অনেক কম।

বিবিসির এক পরিসংখ্যানে জানানো হয়েছে, চলতি অর্থবছরে চীনের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার দাঁড়িয়েছে মাত্র ৬ শতাংশে। নব্বইয়ের দশকের পর দেশটির অর্থনীতির এত খারাপ অবস্থা আর কখনো হয়নি। ফলে আগামী দেশটির অর্থনৈতিক নানা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে।

চীনের জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো (এনবিএস) তথ্য-উপাত্ত হাজির করে জানিয়েছে, চলতি বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর—এই তিন মাসে চীনের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৬ শতাংশ। তার আগের তিন মাস অর্থাৎ এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে প্রবৃদ্ধি ছিল ৬.২ শতাংশ।

১৯৯২ সালের পর চীনের প্রবৃদ্ধি কখনো এত নিচে নামেনি। তবে প্রবৃদ্ধির হার সর্বনিম্ন হলেও চীন সরকারের বার্ষিক প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রার মধ্যেই রয়েছে। চলতি অর্থবছরে প্রত্যাশিত জিডিপির (মোট দেশজ উৎপাদন) মাত্রা তারা ঠিক করেছে ৬ থেকে ৬.৫ শতাংশ।

বিশ্লেষকরা আশঙ্কা করছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি চীন। আর দেশটির অর্থনীতির এ শ্লথগতি বিশ্ব অর্থনীতিতেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। অর্থনীতিকে চাঙা করতে চীন সরকার নতুন উদ্যোগ হাতে নিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত বছর চীনের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ছিল ৬.৬ শতাংশ। কর কর্তনের মতো পদক্ষেপ নিয়ে অর্থনীতিকে ধরে রাখার চেষ্টা করার পরও জিডিপির এই শ্লথগতি। নগদ অর্থের সংকট মোকাবিলায় অভ্যন্তরীণ বাজারে ২৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ মুদ্রা সরবরাহের ঘোষণা দিয়েছে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক।