ঢাকায় যোগাসনে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী-তারকাও

ঢাকায় যোগাসনে  মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী-তারকাও

স্টাফ রিপোর্টার : আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে নানা শ্রেণি-পেশা ও বয়সের নারী-পুরুষের ঢল নেমেছিল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। ভারতীয় হাই কমিশনের আয়োজনে গতকাল শুক্রবার সকাল সোয়া ৮টায় স্টেডিয়ামে শুরু হয় পঞ্চম আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের এই অনুষ্ঠান। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিভিন্ন ক্রীড়া সংগঠন, যোগ ব্যায়াম প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরাসহ এতে যোগ দেন সাত হাজার মানুষ। বড়দের সঙ্গে যোগাসনে স্বতঃস্ফূর্ত দেখা গেছে শিশুদেরও। সবার জন্য উন্মুক্ত এই আয়োজনে অংশগ্রহণকারীদের বিনামূল্যে যোগ ম্যাট, টি-শার্ট এবং পানির বোতল দেওয়া হয়। অংশগ্রহণকারীদের যোগ ব্যায়ামের নানা     
কলাকৌশল দেখিয়ে দেন ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারের যোগ ব্যায়ামের প্রশিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। প্রশিক্ষকদের দেখিয়ে দেওয়া বিভিন্ন আসন অনুসরণ করতে দেখা যায় দেশের  ক্রীড়া ও বিনোদন জগতের তারকাদেরও। এদের মধ্যে ছিলেন অভিনেত্রী জয়া আহসান। পাশাপাশি যোগাসনে দেখা যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও  ভারতীয় হাই কমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাশকে।
এবার মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে আরও ছিলেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এবং নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। যোগ দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠানে মাঠে বড় পর্দায় দেখানো হয় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভিডিও বার্তা। ২০১৪ সালে জাতিসংঘে ভাষণ দেওয়ার সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২১ জুনকে  ‘ইন্টারন্যাশনাল ডে অফ ইয়োগা’ ঘোষণা করেন। পরে প্রস্তাবটি জাতিসংঘের ১৭৫টি রাষ্ট্রের সমর্থন নিয়ে সাধারণ পরিষদে আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে পালনের স্বীকৃতি পায়। ভারতীয় হাই কমিশনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতিসংঘের কোনো প্রস্তাবের প্রতি এটিই ছিল সর্বোচ্চ সংখ্যক রাষ্ট্রের সমর্থন। ঢাকা ছাড়াও বিভিন্ন জেলায় তাদের আয়োজনে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের অনুষ্ঠান হয়েছে বলে হাই কমিশন জানিয়েছে। ভারতীয় হাই কমিশন ২০০০ সালে ঢাকায় প্রথমবারের মতো এই আয়োজন করেছিল। তাতে মাত্র ৭০০ জন অংশ নিয়েছিল। পরে ২০১৬ সালের দ্বিতীয় আসরে মন্ত্রী, কূটনীতিক, শিল্পীসহ রাজধানীর মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে অংশ নেন  ১৫০০ জন। ২০১৭ সালে প্রায় ৫ হাজার নাগরিক যোগ দেন এবং ২০১৮ সালে যোগ দেন প্রায় ৬ হাজার মানুষ।