ঢাকা ও চুয়াডাঙ্গায় মায়ের হাতে শিশু খুন

ঢাকা ও চুয়াডাঙ্গায় মায়ের  হাতে শিশু খুন

করতোয়া ডেস্ক : রাজধানীর মানিক-নগরে এক গৃহবধূর বিরুদ্ধে তার সাড়ে তিন বছরের মেয়েকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অন্যদিকে, চুয়া-ডাঙ্গায় ¯েœহা নামে দুই বছরের এক শিশু কন্যাকে গলা কেটে হত্যা করেছে পাষন্ড এক মা। রাজধানীতে রোববার রাতে ওই ঘটনায় সন্তানের সঙ্গে ওই নারীও (৩২) আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ বলছে, কাপ আইসক্রিমের সঙ্গে ১০টি ঘুমের ট্যাবলেট মিশিয়ে খাওয়ানোর পরে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে কান্নাকাটি করলে তাকে কোলে করে ঘর থেকে বের হন ওই নারী। সে সময় ওই নারীর সন্দেহজনক আচরণ করতে থাকেন। মা-মেয়ের মুখে ফেনা দেখে  আশপাশের বাসিন্দারা দ্রুত হাসপাতালে নিলে চিকি’সক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই নারীকে পুলিশ হেফাজতে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আর ময়না তদন্তের জন্য শিশুটির লাশ ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। মুগদা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা  বলেন, ওই নারী স্বীকার করেছেন, তিনি তার সন্তানকে আইসক্রিমের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাইয়ে নিজেও খেয়েছেন। তিনি কেন এই কাজ করেছেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই নারীর স্বামী এক মাস আগে মারা গেছেন জানিয়ে ওসি বলেন, এ ঘটনায় শিশুটির চাচা মামলা করবেন।

সন্তানকে গলা কেটে হত্যা করল মা চুয়াডাঙ্গায় ¯েœহা নামে দুই বছরের এক শিশু কন্যাকে গলা কেটে হত্যা করেছে পাষন্ড এক মা। গতকাল সোমবার সকালে জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার সনাতনপুর গ্রামে এ লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘাতক মা শামীম আরা সাইমাকে গ্রেফতার করেছে। উদ্ধার করা হয়েছে হত্যার কাজে ব্যবহৃত ধারালো বটি। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আলমডাঙ্গা উপজেলার সনাতনপুর গ্রামের গ্রাম্য ডাক্তার মামুন অর রশিদের পরিবারের সদস্যরা সকালে সবাই ঘুমিয়ে ছিলো। এ সময় পরিবারের সকলের অজান্তে তার স্ত্রী শামীম আরা সাইমা তার শিশু কন্যা ¯েœহাকে ঘুম থেকে উঠিয়ে বাড়ির দুই তলার ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে রান্না ঘরে থাকা ধারালো বটি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে শিশু ¯েœহাকে। নিহত ¯েœহার বাবা মামুন অর রশিদ জানান, সকালে ঘুম থেকে উঠে ¯েœহাকে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু হয়। এর কিছুক্ষণ পর বাড়ির দুই তলার ছাদের রান্না ঘর থেকে তার জবাই করা মৃতদেহ  দেখতে পায় পরিবারের সদস্যরা। পরে খবর দেওয়া হয় আলমডাঙ্গা থানা পুলিশকে। খবর পেয়ে সকাল ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতর মরদেহ উদ্ধার করে থানাতে নিয়ে আসে। শিশু সন্তান হত্যার দায়ে গ্রেফতার করা হয় ঘাতক মা শামীম আরা সাইমাকে।

আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান মুন্সি জানান, হত্যাকান্ডের পর ঘাতক মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে হত্যার কাজে ব্যবহৃত ধারালো বটি। প্রাথমিকভাবে শামীম আরা সাইমা তার শিশু কন্যা হত্যার কথা স্বীকারও করেছে।¯েœহার চাচা মিস্টার জানিয়েছেন, বেশ কিছুদিন ধরে মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন তার ভায়ের স্ত্রী শামীমা। এর আগেও ¯েœহাকে হত্যার প্রচেষ্টা চালায় শামীমা। তবে সে যাত্রায় সে প্রাণে বেঁচে যায়। আলমডাঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিয়াউর রহমান জানান, নিহত শিশুর মরদেহ উদ্ধারের পর সুরতহাল রিপোর্ট শেষে মরদেহ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।