ডিমলায় কিশোরীবধূর গর্ভের সন্তান নষ্টের অভিযোগ

ডিমলায় কিশোরীবধূর গর্ভের সন্তান নষ্টের অভিযোগ

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় সুধা রানী নামে এক নববিবাহিত স্কুলছাত্রীকে তার শ্বশুর বাড়ি থেকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। গর্ভের সন্তান নষ্টের অভিযোগ।

সোমবার (৩০ জুলাই) সকালে উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানি ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলি গ্রাম থেকে তাকে উদ্ধার করে ডিমলা হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ।

অভিযোগ মতে, সোনাখুলি গ্রামের সুভাষ চন্দ্র রায়ের মেয়ে চাপানি সোনাখুলি সৈকত নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির স্কুলছাত্রী শুধা রানীর সঙ্গে একই এলাকার ননী চন্দ্র রায়ের ছেলে জয়কান্ত রায়ের (১৮) প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। প্রেমের সূত্রে দৈহিক সম্পর্কের কারণে ওই স্কুলছাত্রী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ঘটনা সমাধানে উভয় পরিবার তাদের বিয়ে দেয়। এ জন্য তারা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে ৮ জুলাই এই বিয়ে সম্পন্ন করেন। এরপর শ্বশুর বাড়িতে ওঠার পর মেয়েটির গর্ভের সন্তান নষ্ট করতে স্বামী জয়কান্ত রায় তাকে ওষুধ সেবন করতে বাধ্য করে। এতে গর্ভের সন্তান নষ্টসহ অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হতে থাকে। খবর পেয়ে মেয়েটির বাবাসহ আত্মীয়স্বজন ছুটে এলে তাদের বাড়িতে ঢুকতে বাধা দেয়া হয়।

বিষয়টি নিয়ে মেয়েটির কাকা ধরঞ্জয় রায় বাদি হয়ে ডিমলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ ওই অভিযোগে সোমবার সকালে মেয়েটিকে তার শ্বশুর বাড়ি থেকে উদ্ধার করে ডিমলা হাসপাতালে ভর্তি করে।

চিকিৎসাধীন সুধা রানী অভিযোগ করে  বলেন, বিয়ের পর থেকে আমার শ্বশুর আমাকে কারণে-অকারণে নির্যাতন করতেন। আমার গর্ভের সন্তান যারা নষ্ট করেছে, আমি তাদের বিচার চাই।

ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন, অভিযোগটি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।