ডাক্তারদের ঘাড়ে কয়টা মাথা : মির্জা ফখরুল

ডাক্তারদের ঘাড়ে কয়টা মাথা : মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার : বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিকিৎসকদের অবাধ ও নিরপেক্ষ প্রতিবেদন দাখিল নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, সরকারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) যখন বলেন যে- সব ঠিক আছে, তিনি (খালেদা জিয়া) সুস্থ আছেন, রাজার হালতে আছেন; তখন বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্য ও ডাক্তারদের ঘাড়ে কয়টা মাথা আছে যে বলবেন তিনি (খালেদা জিয়া) খারাপ আছেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এবং স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে নব্বইয়ের ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্রঐক্যের উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন ফখরুল। বিএনপি মহাসচিব বলেন, বৃহস্পতিবার সরকার আদালত অবমাননা করেছে। বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য (ভিসি) আদালত অবমাননা করেছেন।

 ৫ তারিখের মধ্যে দুটি প্রতিবেদন চেয়েছিলেন। কোর্ট আদেশ দিয়েছিলেন যে এই রিপোর্ট চিকিৎসকদের স্বাক্ষরসহ হাজির করতে হবে। কিন্তু তারা করেননি। সেখানেই তো আদালত অবমাননা হওয়া উচিত ছিল। বিচার বিভাগ ও প্রধান বিচারপতিকে আমরা শ্রদ্ধা ও সম্মান করি। কিন্তু অবাক হই যখন ব্যবস্থা না নেওয়া হয়। প্রধান বিচারপতি আদালত অবমাননার জন্য কোনো ব্যবস্থা নেননি। সুপ্রিম কোর্টের ঘটনাকে নজিরবিহীন উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় আছেন। তার জামিন শুনানিতে যারা আদেশ মানলেন না- উচ্চ আদালত তাদের আরও সময় দিলেন। দুর্ভাগ্য এই জাতির। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা হয়ে দলীয় স্বার্থে কাজ করছেন বলে অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। সংগঠনের সভাপতি আমানউল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং সাবেক ছাত্রনেতা নাজিমউদ্দিন আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য দেন-সাবেক ছাত্রনেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, খায়রুল কবির খোকন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, খন্দকার লুৎফর রহমান, সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, হাবিবুল ইসলাম হাবিব প্রমুখ।

বিএনপির যৌথসভা আজ : শহীদ বুদ্ধিজীবী ও মহান বিজয় দিবসকে যথাযথভাবে পালনের লক্ষ্যে যৌথসভা ডেকেছে বিএনপি। আজ শনিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই যৌথসভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। যৌথসভায় বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব, সম্পাদকমন্ডলী, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকেরা এবং ঢাকা মহানগরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন। যৌথসভা শেষে দিবস দুটি পালন উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।