ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-৮, আহত ২৪

ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দুর্ঘটনায়  নিহত-৮, আহত ২৪

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন মিনিবাস চালকসহ ৮জন, আহত হয়েছে অন্তত ২৪ জন। তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ ও  ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের পরিবারকে ১০ হাজার টাকা সহায়তার করার ঘোষনা দিয়েছে ঠাকুরগাঁও  জেলা প্রশাসক। এ ঘটনার পর যানচলাচল ৩ ঘন্টা বন্ধ থাকলে পরে উদ্ধারকর্মীরা যানচলাচল স্বাভাবিক করে। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টায় ঠাকুরগাঁও-ঢাকা মহাসড়কের বড় খোচাবাড়ি বলাকা উদ্যান এলাকায় ঢাকা থেকে আসা ডিপজল এন্টার প্রাইজ ও দিনাজপুরগামী যাত্রীবাহী নিশাত এন্টার প্রাইজের মুখোমুখী সংঘর্ষ হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে মিনিবাসের চালক চায়না (৩৫) সহ  ৫ জন,  ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর ২ জন ও রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরো একজন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়।

নিহতরা হলেন, ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বিপুল চন্দ্র (৩৫), আব্দুর রহমান (৪৫), মোস্তফা (৪৫) , তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪০), বীরগঞ্জ উপজেলার গলিরামের মঙ্গলী রানী (৭০), একই এলাকার মনেস্বরের স্ত্রী জবা (৩৫), আব্দুল মজিদ (৩৬)। আহত হয়েছে ২৪জন। তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ, দিনাজপুর আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঘটনার পর ঠাকুরগাঁও-ঢাকা মহাসড়কে ৩ ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে ফায়ার সার্ভিস ও থানা পুলিশ সড়কের যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করে।

সদর থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁওগামী ডিপজল এন্টারপ্রাইজ নামে একটি বাসের সঙ্গে ঠাকুরগাঁও থেকে দিনাজপুরগামী নিশাত পরিবহন নামে অপর একটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের পর দুটি বাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। তিনি আরো জানান, নিহতদের মধ্যে পাঁচজন নারী ও তিনজন পুরুষ। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা বাস দুটি উদ্ধার করেছে। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।এদিকে দুর্ঘটনায় হতাহতদের দেখতে যান জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিমসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এসময় আহতদের সু-চিকিৎসার সার্বিক সহায়তার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগকে নির্দেশ দেন প্রশাসনের শীর্ষ এই কর্মকর্তা। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে নিহতের পরিবারের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে প্রদানের কথা বলেন জেলা প্রশাসক।