ট্রাক কেড়ে নিল নার্সের প্রাণ বাস নিল তরুণীর পা

ট্রাক কেড়ে নিল নার্সের প্রাণ বাস নিল তরুণীর পা

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানোসহ হাত-পা হারিয়ে পঙ্গুত্ব বরণ এখন নিত্য নৈমেত্তিক ঘটনা। গত শুক্রবার রাতেও রাজধানীর ধানমন্ডিতে ট্রাকচাপায় মাসুদা (৩৫) নামে বেসরকারি হাসপাতালের এক নার্স প্রাণ হারিয়েছেন। একই রাতে বনানীতে বাসের চাপায় পা হারিয়ে পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন রোজিনা নামে এক তরুণী গৃহকর্মী। আটক করা হয়েছে  রোজিনাকে চাপা দেওয়া বিআরটিসি’র একটি বাস এবং এর চালক শফিকুলকে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানিয়েছে, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে বনানী ফ্লাইওভারের কাছে রাস্তা পার হওয়ার সময় মহাখালী থেকে কাকলীগামী বিআরটিসির একটি বাস রোজিনাকে  ধাক্কা দেয়। তিনি সড়কে পড়ে গেলে বাসটি তার ডান পায়ের উপর দিয়ে চলে যায়। পরে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ‘মেয়েটা সিগনাল দিচ্ছিলো। তবে তার সিগনালে সাড়া না দিয়ে গাড়িটা গতি আরও বাড়িয়ে পায়ের উপর দিয়ে চলে যায়। পাটা দুই ভাগ হয়ে যায়।’ চিকিৎসক জানান, রোজিনার অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার শরীর থেকে ডান পা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বনানী থানার উপ-পরিদর্শক সামছুল জানান, এ ঘটনায় বিআরটিসি বাস এবং চালককে আটক করা হয়েছে।

এদিকে বনানীতে সড়ক দুর্ঘটনার কিছুক্ষণ পর শুক্রবার রাতে ধানমন্ডিতে ট্রাকের চাপায় প্রাণ হারান ইস্কাটনস্থ এসপিআরসি হাসপাতালের নার্স মাসুদা। ধানমন্ডি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মিরাজ জানান, শুক্রবার রাত সোয়া ৯টার দিকে অসুস্থ বিয়াই আরিফকে দেখতে রিকশায় আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতাল যাচ্ছিলেন মাসুদা। এ সময় একটি ট্রাক তার রিকশাকে চাপা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত পৌনে ১২টায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মাসুদার স্বামীর নাম মো. জামাল। গ্রামের বাড়ি বরিশাল জেলার মুলাদী উপজেলার  কৈলারচর এলাকায়। তিনি পরিবারের সাথে শাহবাগ এলাকায় খাজা ভবনের পেছনে একটি টিনশেড বাসায় ভাড়া থাকতেন।