টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদকবিক্রেতা নিহত

টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদকবিক্রেতা নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফের দমদমিয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শামসুল (৩৯) প্রকাশ বার্মাইয়া শামসু নামে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত এক মাদকবিক্রেতা নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দু’টি দেশিয় তৈরি বন্দুক, ২০ হাজার ইয়াবা, ১২ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার (২১ জানুয়ারি) মধ্যরাত ২টার দিকে এ অভিযান চালানো হয়। নিহত মাদকবিক্রেতা হ্নীলার সিকদারপাড়ার মৃত মোহাম্মদ হোসাইনের ছেলে।

পুলিশের দাবি, এ সময় টেকনাফ থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) রাসেল সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) ফয়েজ ও মো. আমির আহত হয়েছেন।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত মাদকবিক্রেতা শামসুকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সোমবার রাত দুইটার দিকে হ্নীলা দমদমিয়া চেকপোস্টের কাছে অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করতে যায় পুলিশ। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়েই আগে থেকে উৎপেতে থাকা শামসুর সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। একপর্যায়ে মাদকবিক্রেতারা পিছু হটলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দু’টি দেশিয় তৈরি বন্দুক, ২০ হাজার ইয়াবা এবং ১২ রাউন্ড গুলি এবং মাদকবিক্রেতা শামসুরের মরদেহ উদ্ধার করে।

ওসি জানান, মাদকবিক্রেতা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাদকবিক্রেতার তালিকায় ৬৭৮ নম্বরে শমসুর নাম রয়েছে। তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ১০টি মামলা রয়েছে। এছাড়াও তার তিনটি ট্রাক, তিনটি বাস, ঢাকার গুলশানে ১০তলা ভবন রয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

ওসি প্রদীপ আরও জানান, মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে। এ ঘটনায় তিনটি পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।