টাঙ্গাইলে মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩

টাঙ্গাইলে মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩

 টাঙ্গাইল শহরে একটি মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে এক তরুণীসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ সদস্যসহ আরো চারজন দগ্ধ হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) ভোর ৫টার দিকে শহরের কুমুদিনী কলেজ মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও চৌধুরীবাড়ী এলাকার অপহৃত স্কুলছাত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস বর্ণা, তার খালাতো ভাই ফারুক (৪২) ও মামা সিরাজুল ইসলাম (৫৫)।

পুলিশসহ নিহতদের স্বজনরা জানান, ফেসবুকে সোনারগাঁওয়ের বর্ণার রাজশাহীর বাঘমারার এক ছেলের সঙ্গে পরিচয় হয়। এরপর তিনি বাঘমারায় ওই ছেলের কাছে চলে যান।

দুর্ঘটনায় দগ্ধ সোনারগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তানভীর আহমেদ  জানান, এক পর্যায়ে ওই তরুণীর পরিবার সোনারগাঁও থানায় একটি অপহরণ মামলা করে। এর জের ধরে সোনারগাঁও থানা পুলিশ বাঘমারা থেকে মেয়েটিকে আনতে যায়।

সেখান থেকে ফেরার পথে টাঙ্গাইল শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ড সিএনজি পাম্প থেকে গ্যাস নেয় তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসটি। এরপর শহরের কুমুদিনী কলেজ মোড়ে রাস্তার গতিরোধকে (স্পিড ব্রেকার) প্রচণ্ড ঝাঁকুনি লাগে।

আর এতেই মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে মুহূর্তেই আগুন লেগে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই জান্নাতুল ফেরদৌস বর্ণা ও ফারুকের মৃত্যু হয়।
তিনি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দগ্ধদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানকার চিকিৎসক সিরাজুল ইসলামকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায়  এসআই তানভীর (৩৩) ছাড়াও দগ্ধ এএসআই হাবিব (৩০), পুলিশ কনস্টেবল আজাহার (৪৫) ও মাইক্রোবাস চালক কে (৩৫) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।