টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান হারিয়ে চাপে অস্ট্রেলিয়া

টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান হারিয়ে চাপে অস্ট্রেলিয়া

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে চাপে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া। দুর্দান্ত ছন্দে থাকা দুই ওপেনারকে সাজঘরে পাঠিয়েছে ইংলিশ বোলাররা।

দলীয় চার রানে অ্যারন ফিঞ্চকে ব্যক্তিগত শূন্য রানে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন জোফরা আর্চার। পরের ওভারেই ৯ রান করা ডেভিড ওয়ার্নারকে জনি বেয়ারস্টোর ক্যাচে পরিণত করেন ক্রিস ওকস। এরপর দলীয় ১৪ রানে অভিষেক বিশ্বকাপ খেলতে নামা পিটার হ্যান্ডসকম্বকে (৪) বোল্ড করে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন ওকস।  
 
এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ১১.৩ ওভার শেষে ৩ উইকেটে হারিয়ে ২৯ রান। ব্যাটিংয়ে আছেন  স্টিভেন স্মিথ (৬) ও অ্যালেক্স ক্যারি (৯)।

বৃহস্পতিবার (জুলাই ১১) বার্মিংহামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় শুরু হয় ম্যাচটি।
 
১৯৯২ সালের পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নেমেছে ইংলিশরা। আর দীর্ঘ বিরতির বিপরীতে শেষ চারের লড়াইয়ে একবারও না হারার রেকর্ড নিয়ে নেমেছে অজিরা। প্রথম রাউন্ডে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছিল ইংল্যান্ড। সেমিফাইনালে বদলার লড়াই তাই রুটদের।
 
বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত দু'দলের দেখা মোট ৮ বার; যেখানে অজিরা জিতেছে ৬ বার আর ইংলিশরা জিতেছে ২ বার। এছাড়া সবমিলিয়ে ৫০ ওভারের ম্যাচে দু’দলের ১৪৮ বারের দেখায় অজিরা জিতেছে ৮২টি ম্যাচে আর ইংল্যান্ডের জয় ৬১টি ম্যাচে। আর ২টি ম্যাচ টাই ও ৩টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। এই পরিসংখ্যানে নিশ্চয়ই এগিয়ে অজিরা। তবে এই আসরে কাগজে-কলমে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড একই বিন্দুতে দাঁড়িয়ে। দুই দলেই রয়েছে একাধিক ম্যাচ উইনার। তাই এজবাস্টনে দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই অপেক্ষা করছে, তা বলাই যায়।
 
অস্ট্রেলিয়া একাদশ: ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ, স্টিভেন স্মিথ, পিটার হ্যান্ডসকম্ব, মার্কাস স্টোইনিস, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যালেক্স ক্যারি, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, জেসন বেহরেনডর্ফ ও নাথান লিঁও।
 
ইংল্যান্ড একাদশ: জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, জো রুট, ইয়ন মরগান, বেন স্টোকস, জশ বাটলার, ক্রিস ওকস, লিয়াম প্ল্যাঙ্কেট, জোফেরা আর্চার, আদিল রশিদ ও মার্ক উড।