জয়নুল, খোকনের আগাম জামিন

জয়নুল, খোকনের আগাম জামিন

খালেদা জিয়ার রায়ের দিন সংঘর্ষের মামলায় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন ও সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকনকে আগাম জামিন দিয়েছে হাই কোর্ট। বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের হাই কোর্ট বেঞ্চ রোববার এ আদেশ দেয়। জয়নুল ও খোকনের আইনজীবী জানিয়েছেন, পুলিশ এ মামলার প্রতিবেদন দেওয়া পর্যন্ত তারা জামিনে থাকবেন। আদালতে জয়নুল অবেদীনের পক্ষে শুনানি করেন মওদুদ আহমদ ও সগীর হোসেন লিয়ন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জাহাঙ্গীর আলম।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের দিন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আদালতে যাওয়ার পথে দলটির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনায় নাশকতা ও পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ রমনা থানায় তিনটি মামলা করে। তিন মামলাতেই জয়নুল ও খোকনকে আসামি করা হয়। আইনজীবী লিয়ন বলেন, তিনটি মামলাতেই ১৮০ জন করে আসামি করা হয়েছে। রোববার নেত্রকোণার জেলা দায়রা জজ রাশেদুজ্জামান রাজা এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডিত মো.সোয়াব মিয়ার বাড়ি নেত্রোকোণার সদর উপজেলার বর্শিকূড়া গ্রামে।রায় ঘোষণার সময় তিনি কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। মামলার বিবরণে বলা জয়, সোয়াব মিয়া সংসার চালানোর টাকায় নিয়মিত জুয়া খেলতেন।এর জেরে ২০১৬ সালের ২৬ এপ্রিল রাতে অন্তঃস্বত্ত্বা স্ত্রী শিল্পী আক্তারের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়।এক পর্যায়ে শিল্পীকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন সোয়াব। পরদিন শিল্পীর ভাই স্বপন মিয়া বাদি হয়ে সোয়াবের নামে থানায় মামলা করলে পুলিশ তাকে আটক করে।পরে হত্যার কথা স্বীকার করে সোয়াব আদালতে জবানবন্দি দেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ২৫ জুলাই পুলিশ সোয়াবের নামে আদালতে  অভিযোগপত্র দিলে এ মামলার বিচারকাজ শুরু হয়।