* পিরোজপুরের এসপিকে প্রত্যাহার

চতুর্থ ধাপের ৫ উপজেলার নির্বাচন স্থগিত

চতুর্থ ধাপের ৫ উপজেলার নির্বাচন স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার : আদালতের নির্দেশনা, অনিয়ম ও সহিংসতার কারণে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়াসহ চতুর্থ ধাপের পাঁচ উপজেলা পরিষদের ভোট স্থগিত করেছে ইসি। কুমিল্লার বরুড়া, ময়মনসিংহের ত্রিশাল, ফেনীর ছাগলনাইয়া ও খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার ভোট স্থগিত করা হয়েছে বলে ইসির সহকারী সচিব আশফাকুর রহমান জানিয়েছেন। এ ছাড়া নির্বাচনী সহিংসতা রোধে ব্যর্থ হওয়ায় পিরোজপুরের পুলিশ সুপার ও মঠবাড়িয়ার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সেই সঙ্গে মঠবাড়িয়া উপজেলার নির্বাচনও স্থগিত করা হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান জানিয়েছেন।

 আগামীকাল রোববার চতুর্থ ধাপের উপজেলা নির্বাচনে এখানে ভোট হওয়ার কথা ছিল। গত সোমবার মঠবাড়িয়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার পর এ সিদ্ধান্ত নিল নির্বাচন আয়োজনকারী সংস্থাটি। বৃহস্পতিবার মহাপুলিশ পরিদর্শকের কাছে ইসির পাঠানো এক নির্দেশনায় বলা হয়, মঠবাড়িয়ায় নির্বাচনী সহিংসতা রোধে ব্যর্থ হওয়ায় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবির এবং মঠবাড়িয়ার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমআর শওকত আনোয়ার ইসলামকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়েছে। তাদের প্রত্যাহার করে সমমর্যাদার কর্মকর্তাদের দায়িত্ব দিয়ে ইসিকে অবহিত করার জন্যও বলা হয়েছে পুলিশ প্রধানকে। নির্বাচনী প্রচারের মধ্যে গত সোমবার সকালে মঠবাড়িয়ার কবুতরখালী গ্রামের বিলের পাড়ে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি জনি তালুকদারকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন।

পাঁচ ওসি-ইউএনও দায়িত্ব থেকে বাদ : ইসি কর্মকর্তারা জানান, চতুর্থ ধাপের ভোট সামনে রেখে অভিযোগের প্রেক্ষিতে বরগুনার আমতলীর ওসি আলাউদ্দিন মিলনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার ওসি মো. শাহাজাহান কবির এবং ভোলার তজুমদ্দিনের ওসি ফারুখ আহমদকে নির্বাচনী দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া যশোরের কেশবপুরের ইউএনও মিজানুর রহমান এবং ব্রাহ্মবাড়িয়ার আশুগঞ্জের ইউএনও মৌসুমী বাইন হীরাকে সরাতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কটিয়াদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও ওসি বরখাস্ত : ভোটের আগে রাতেই ব্যালটে সিল মেরে বাক্স ভরার ঘটনায় কিশোরগঞ্জের সেই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শফিকুল ইসলাম ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুদ্দিনকে দুই মাসের জন্য বরখাস্ত করা হয়েছে। অসদাচরণের জন্য তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে আইজিপিকে নির্দেশ দেয় ইসি।