চট্টগ্রামে দুই গাড়িতে ২৮ কোটি টাকার সোনা

চট্টগ্রামে দুই গাড়িতে ২৮ কোটি টাকার সোনা

চট্টগ্রাম শহর ও মিরসরাইয়ে দুটি গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৭০০টি সোনার বার উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে নগীর সিআরবি আটমানিং মোড় থেকে প্রথম চালানটি ধরার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মিরসরাইয়ের সোনাপাহাড় এলাকায় ধরা হয় দ্বিতীয় গাড়িটি।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, প্রথম গাড়ি থেকে উদ্ধার ১০০টি সোনার বারের ওজন ১১ কেজি ৬৬২ গ্রাম, যার আনুমানিক বাজার দাম চার কোটি ৪৫ লাখ টাকা। আর মিরসরাইয়ে উদ্ধার ৬০০টি সোনার বারের ওজন ৬০ কেজি এবং এর বাজার মূল্য প্রায় ২৪ কোটি টাকা।

দুই ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানার ওসি ইফতেখার হাসান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুপুরে সোনাপাহাড় এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে একটি জিপে তল্লাশি চালিয়ে ৬০০টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় মো. করিম ও মো. রফিক নামের দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওসি বলেন, “গাড়ির সিটের নিচে ও তেলের ট্যাঙ্কের ভেতরে বিশেষ কৌশলে বেঁধে বারগুলো ঢাকার দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। আমাদের সিনিয়র অফিসারদের উপস্থিতিতে বারগুলো জব্দ করা হয়েছে।”  

এর আগে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর সিআরবি আটমানিং মোড়ে একটি প্রাইভেট কারে তল্লাশি চালিয়ে ১০০টি সোনার বার উদ্ধার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

ওই গাড়ি থেকে লাভু সাহা ওরফে প্রলয় কুমার সাহা (৫৯) এবং বিলাল হোসেন ওরফে কাদের (২৮) নামে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার (বন্দর) এসএম মোস্তাইন হোসাইন বলেন, নগরীর প্রবর্তক মোড়ের বদনাশাহ মাজার এলাকা থেকে সোনার বারগুলো নারায়ণগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। সেখানে থেকে সেগুলো ঢাকায় নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের।

মিরসরাইয়ে ধরা পড়া সোনার বারগুলোও ঢাকা নেওয়া হচ্ছিল জানিয়ে ওসি ইফতেখার বলেন, “চট্টগ্রাম নগরীতে আটক চালানের সাথে এটির কোনো সম্পৃক্ততা আছে কি না, তা জানা যায়নি। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।”