গুগলকে ছাড়াই শীর্ষস্থান দখল নিতে পারে হুয়াওয়ে: রেন ঝেংফেই

গুগলকে ছাড়াই শীর্ষস্থান দখল নিতে পারে হুয়াওয়ে: রেন ঝেংফেই

টেক জায়ান্ট গুগলের সহায়তা ছাড়াই বিশ্বের ১ নম্বর স্মার্টফোন নির্মাতা হওয়া হুয়াওয়ের জন্য কোনো ব্যাপার নয়, আমরা চাইলেই এটা সম্ভব- এমনটাই জানিয়েছেন চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেন ঝেংফেই।


তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে বলেন, যদি আমাদের হারমনি অপারেটিং সিস্টেম (ওএস) একবার পুরোপুরি কাজ শুরু করে তবে এটা অবশ্যই গুগলের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। যদি এটি চালু হয়ে যায় একবার তবে সেখান থেকে আর ফেরার পথ থাকবে না।

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন হুয়াওয়ের এই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি কোনো লুকোচুরি না করে সম্প্রতি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কারণে হুয়াওয়ে বাজেভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বিশেষ করে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড সফটওয়্যার, প্লে স্টোর এবং জনপ্রিয় অ্যাপগুলো (গুগল সার্চ এবং ম্যাপস) হুয়াওয়ের ফোনে ব্যবহার করা যায় না, যা তাদের ব্যবসাকে বাধাগ্রস্ত করছে।

ঝেংফেই বলেন, যদি হুয়াওয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে ব্যবসা করতে না পারে তবে বিকল্প পথ অনুসরণ করতে হবে। যদি বিকল্প পথটি পরিপক্ক হয়ে যায় তবে সেখান থেকে ফেরার আর সুযোগ থাকবে না। যদি হুয়াওয়ে বিকল্প পথ ধরে হাঁটা শুরু করে তবে তা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য ক্ষতি বয়ে আনবে। বর্তমান সময়টা আমাদের সবার জন্য কঠিনই বটে! আমি প্রত্যাশা করছি, যুক্তরাষ্ট্রের সরকার তাদের প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য কোনটা ভালো হবে সে বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবে।

অ্যান্ড্রয়েডের জগতে বিশ্বের ১ নম্বর হওয়া কোনো ব্যাপারই না উল্লেখ করে ঝেংফেই বলেন, এটা শুধু সময়ের ব্যাপার। আর কিছুই নয়।

চীনা এ টেলিকম জায়ান্ট অভিযোগ করে বলেছে, তাদের বিরুদ্ধে আরোপ করা যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা সম্পূর্ণ ‘বেআইনি’।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় হুয়াওয়ের সঙ্গে ব্যবসার ক্ষেত্রে দ্য টেমপরারি জেনারেল লাইসেন্সের (টিজিএল) মেয়াদ ৯০ দিনের জন্য বাড়িয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যমন্ত্রী উইলবার রস এক বিবৃতিতে বলেন, এ সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যন্ত অঞ্চলে গ্রাহকদের সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে কাজে আসবে।

চলতি বছরের মে মাসে হুয়াওয়েকে কালো তাকিলাভুক্ত করে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।