গাজীপুরের নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করতে মরিয়া বিএনপি

গাজীপুরের নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করতে মরিয়া বিএনপি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করতে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে বিএনপি। তবে অচিরেই তারা ব্যর্থ হয়ে বিদেশিদের কাছে ধর্ণা দেবে। তাদের দ্বারস্থ হবে।

বুধবার (২৭ জুন) ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জিসিসি নির্বাচন পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি জনগণের প্রতি আস্থা না রেখে বিদেশিদের প্রতি আস্থা রাখতে চায়। সে কারণে তারা বিদেশিদের দ্বারস্থ হতে চায়। তবে জনগণের প্রতি আস্থা না রেখে বিদেশিদের দারস্থ হয়ে কোনো লাভ হবে না।

‘গাজীপুর নির্বাচনে বিএনপির কয়েকজন নেতা-কর্মী নৌকার ব্যাজ পরে সন্ত্রাসের পরিকল্পনা করেছিলেন। তাদের ফোনালাপের মধ্যে দিয়ে সে ঘটনার প্রমাণও মিলেছে।’

তিনি বলেন, আমরা গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অপেক্ষাকৃত ক্লিন ইমেজের প্রার্থী দিয়েছি। সে কারণে ভোটাররা আমাদের প্রার্থীদের ওপর আস্থা রেখেছেন। তাদের বিপুল ভোটে জয়ী করেছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে বিএনপি একেক সময় একেক কথা বলছে। তারা কখনো বলছে, ১০টি কেন্দ্রে ভোটে অনিয়ম হয়েছে। কখনো বলছে ২২টি কেন্দ্রে আবার কখনো বলছে ২০০টি কেন্দ্রে অনিয়ম হয়েছে। তবে তারা তথ্য প্রমাণ দিতে পারছেন না। পারলে বিএনপি তথ্য প্রমাণ দিক।

‘গাজীপুর নির্বাচন প্রমাণ করেছে জনগণ সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িক ও নেতিবাচক রাজনীতির বিপক্ষে রায় দিয়েছেন। আগামীদিনেও নিশ্চয়-ই তারা সঠিক রায়  দেবেন,’ বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় সংসদের অর্থ মন্ত্রণালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহঙ্গীর কবির নানক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার (২৬ জুন) জিসিসি নির্বাচনে ৪ লাখ ১০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। তিনি ভোট পেয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬১১ ভোট।