খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বোর্ড যা বলে তা ভীতিকর: মির্জা আব্বাস

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বোর্ড যা বলে তা ভীতিকর: মির্জা আব্বাস

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে কিছুদিন পর পর একটা গৃহপালিত মেডিকেল বোর্ড হয়। সেই বোর্ড কী বলে তা আমরা বুঝি না। যা বলা হয় তা অত্যন্ত ভীতিকর। বললেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।
আজ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যুবদল আয়োজিত দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।
মির্জা আব্বাস বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ও তার চিকিৎসা নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। এমন অবস্থা যে তিনি কেমন আছেন, কী অবস্থায় আছেন, সেটাও আমরা জানতে পারছি না।
তিনি বলেন, একজন বলেন- ‘অবস্থা মোটামুটি ভালো, তবে হায়াত-মউত আল্লাহর হাতে। কী ইঙ্গিত বহন করে এই কথা? ওনারা (সরকার) কি খালেদা জিয়াকে জেলের ভেতরে রেখে মেরে ফেলতে চান?’
মির্জা আব্বাস বলেন, সরকারের কূটকৌশলে আজ দেশনেত্রী জেলে আর আমার নেতা বিদেশে। শারীরিক অবস্থার কারণে উনি দেশে আসতে পারছেন না। তারপরও বিএনপির নেতৃত্ব শূন্য হয়ে যায়নি।
তারেক রহমানের দল পরিচালনা নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, দেশের বাইরে থেকেই তারেক রহমান আমাদের দল পরিচালনা করছেন। এটা নিয়ে আবার আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা মাঝে মাঝে লম্ফঝম্ফ করে ওঠেন। বলেন সবকিছু তারেক রহমানের নির্দেশে হচ্ছে। হ্যাঁ ভাই, তারেক রহমান সাহেবতো আমার দলের ভাইস চেয়ারম্যান, যা কিছু হয়- মিছিল-মিটিং, আন্দোলন সবকিছু তো ওনার কথা মতোই হবে। আপনাদের কথা মতো করব নাকি?