ক্রিকেট কূটনীতিতে কি হেরে গেল বিসিবি?

ক্রিকেট কূটনীতিতে কি হেরে গেল বিসিবি?

বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর নিয়ে জল কম ঘোলা হয়নি। নিরপত্তা ইস্যুর কারণে পাকিস্তান সফরকে সবসময় অনিরাপদ হিসেবেই বিবেচনা করা হয়। সফরকারী দলগুলোকে সন্ত্রাস আর বোমা হামলার আতঙ্কে থাকতে হয় সব সময়। তাই টাইগারদের পাকিস্তান সফর ছিল প্রায় অনিশ্চিত। কিন্তু সব বিতর্ক পেছনে ফেলে অবশেষে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল।

শুরুতে তিনটি টি-টোয়েন্টি আর দুটি টেস্ট খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের। তবে আগে যেখানে টেস্ট সিরিজ নয়, শুধু টি-টোয়েন্টি সিরিজটা খেলতেই আগ্রহী ছিল বাংলাদেশ, সেখানে নতুন সূচি অনুযায়ী টেস্টের পাশপাশি একটি ওয়ানডেও খেলতে হবে। কিন্তু এফটিপি (ফিউচার ট্যুর প্ল্যান) অনুযায়ী, কোনো ওয়ানডে ম্যাচ খেলার কথা ছিল না। তাহলে ওয়ানডে এলো কোথা থেকে? ক্রিকেট কূটনীতিতে বাংলাদেশ কি তবে পাকিস্তানের কাছে পরাজিত হলো, এমন প্রশ্নও উঠেছে।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সকালে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত আইসিসিরি সভা থেকে দেশে ফিরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপনকে শুনতে হয়েছে এমন প্রশ্ন। অবাক হয়েই পাপন বলেন, 'ক্রিকেট কূটনীতিতে হার! এটা কেন বলছে কোনো কারণই আমি খুঁজে পাচ্ছি না। আমি জানিনা। আমার কাছে অদ্ভুত লাগছে। আমরা প্রথম থেকে যেটা বলেছি সেটাই হয়েছে। আমার কাছে তেমনই মনে হচ্ছে।'

ওয়ানডে ম্যাচ অন্তর্ভূক্তি নিয়ে বিসিবি প্রধান বলেন, ‘সরকার থেকে যেই বিষয়টা বলা আছে, আমরা যে রকম আগে থেকে বলেছি, ওইরকমই হয়েছে। এখানটায় লিখেছে যে প্রথমে টি-টোয়েন্টি খেলে আসবে। তারপরে অবস্থা বিবেচনা করে পরবর্তী সময়ে গিয়ে টেস্টগুলো খেলে আসবে। আমরা এখনো সেই ধারাতেই আছি। পাকিস্তানে গিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে খেলার আগে একটা প্রস্তুতি ম্যাচ দরকার। আমাদের কাছে মনে হয়েছে টি-টোয়েন্টির চেয়ে ওয়ানডে হলে হয়ত অনুশীলনটা ভালো হবে।’

যেখানে পুরো পাকিম্তান সফরটা ‍নিয়েই অনিশ্চিয়তা ছিল, সেখানে তিন ধাপের পাকিস্তান সফর করবে বাংলাদেশ। যাই হোক না কেন, ক্রিকেট কূটনীতি বাদ রেখে এখন ক্রিকেট মাঠেই ফিরতে হবে বাংলাদেশকে।