কোহলি বলেছিলেন বলেই...

কোহলি বলেছিলেন বলেই...

এমন কিছু কেউ কখনো করে দেখাতে পারেনি। অস্ট্রেলিয়ার মাঠে গিয়ে গত সাত দশকে টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি কোনো ভারত দল। শুধু ভারতেই আটকে না থেকে এশিয়া দৃষ্টি দিলেও উত্তরটা একই ছিল। অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে সফরকারী দলগুলো শুধু খাবি খেত। কিন্তু কোহলির দল নতুন কিছু করে দেখাল। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে ভারত। এমন ঐতিহাসিক মুহূর্ত স্মরণীয় করে রাখতে ট্রফি হাতে কোহলির ছবিটাই তো দরকার ছিল সবার।

সবাইকে আরও একবার চমকে দিয়েছেন কোহলি। সদ্য জেতা ট্রফিটা সবার আগে তুলে ধরেছেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। অভিজ্ঞতার দিক থেকে সবচেয়ে নবীনতম সদস্য! এমন কিছুতে বিস্মিত হয়েছেন অনেকেই। কারণ, দলের অধিনায়কের ট্রফি উঁচিয়ে ধরার দৃশ্যের সঙ্গেই পরিচিত সবাই। আর এ সিরিজটা তো ছিল বিশেষ কিছু। প্রতিটি ম্যাচেই দুর্দান্ত খেলেছে তারা। শেষ ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে না গেলে ব্যবধান ৩-১ হওয়াটাই স্বাভাবিক ছিল। তাহলে কোহলি কেন ট্রফি উঁচিয়ে ধরলেন না সবার আগে?

অনভিজ্ঞ আগারওয়ালকে এ সম্মান দেওয়ার বুদ্ধিটা কোহলির নিজের। টাইমস অব ইন্ডিয়াকে আগারওয়াল বলেছেন, ‘আমরা সবাই বিজয়ী মঞ্চে ট্রফি তুলে উদ্‌যাপন করতে যাচ্ছিলাম। এমন সময় বিরাট আমাকে থামালেন, তারপর বললেন “তুমি ট্রফি উঁচিয়ে ধরবে।” এটা অসাধারণ এক অনুভূতি ছিল। একজন ক্রিকেটারের জন্য অনেক বড় এক মুহূর্ত। আমি ভাগ্যবান যে এমন এক মুহূর্তের অভিজ্ঞতা পেয়েছি।’

২৭ বছর বয়সী আগারওয়াল সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে খেলেননি। ওপেনার সংকটে পড়া ভারতের হয়ে তৃতীয় টেস্টে অভিষেক হয়েছে তাঁর। অভিষেকে ৭৬ ও ৪২ রানের দুই ইনিংস খেলা আগারওয়াল শেষ ম্যাচেও আরেকটি ফিফটি পেয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ায় অভিষেকের ভয়ংকর চাপ সামলে এমন দুর্দান্ত শুরু খুব কম ওপেনারই পেয়েছেন। আগারওয়াল অবশ্য বলছেন কোনো চাপ অনুভব করছেন না, ‘আমি চাপ নিয়ে ভাবেনি। ভারতীয় দলের অংশ হতে পেরেই উত্তেজিত ছিলাম। এটা দারুণ এক সুযোগ ছিল আমার জন্য এবং আমার পারফরম্যান্সে খুশি। সিরিজ সমতায় ছিল , আমি পারফর্ম করে অবদান রাখতে চেয়েছি।’