কেন ইডেন পার্কের শুধুমাত্র এই চেয়ারটিই সবুজ?

কেন ইডেন পার্কের শুধুমাত্র এই চেয়ারটিই সবুজ?

অকল্যান্ডের ইডেন পার্ক স্টেডিয়াম। নিয়মিতই এই মাঠে অনুষ্ঠিত হয় ক্রিকেটের নানা ইভেন্ট। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি- তিন ফরম্যাটেরই ভেন্যু হচ্ছে এই ইডেন পার্ক। ইডেন পার্কের গ্যালারির চেয়ারগুলো হয় ধূসর (অ্যাশ) রংয়ের।

কিন্তু এই মাঠের গ্যালারিতে একটি বিশেষ বিষয় ক’জন ক্রিকেটপ্রেমীর নজরে পড়ছে কিংবা আদৌ পড়েছে কি না বলা মুশকিল। টিভির পর্দায় একাধিকবার বিশেষ একটি ছবি ফুটে উঠলেও তা গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করেননি হয়তো কেউ। তবে সেই ছবির দিকে কেউ লক্ষ্য করলেও, তার মধ্যে যে একটা রহস্য কিছু লুকিয়ে রয়েছে, সেটা কিন্তু অনেকেই জানে না।
ইডেন পার্কের গ্যালারিতে সব চেয়ারের রং ধূসর হলেও একটি মাত্র চেয়ারের রং সবুজ। বিষয়টা কিন্তু এমনি এমনি হয়নি। ভুলেও কেউ সেখানে একটি সবুজ চেয়ার স্থাপন করে দেয়নি। বরং সচেতনভাবেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ চেয়ারটিকে আলাদা করে চিহ্নিত করেছে। বরং বলা ভালো, বিশেষ একটি ঘটনার স্মারক হিসেবে ধূসরের মাঝে এই সবুজ চেয়ারটিকে বিশেষ এক ক্রিকেটারের নামে সংরক্ষিত করা হয়েছে।

মূল ঘটনা হচ্ছে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার গ্র্যান্ট এলিয়টের একটি মহা মূল্যবান ছক্কার জন্যই এই চেয়ারটিকে সবুজ রংয়ে রাঙায়িত করা হয়েছে। ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যে ছক্কায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নিউজিল্যান্ডকে জয় এনে দিয়েছিলেন এলিয়ট, সেই ছক্কাটি গ্যালারির ঠিক এই চেয়ারটিতে এসে পড়েছিল। এই ছক্কার সৌজন্যেই নিউজিল্যান্ড ৪০ বছরে ১১ বারের প্রচেষ্টায় প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠতে সক্ষম হয়।

জয়ের জন্য শেষ ২ বলে ৫ রান প্রয়োজন ছিল নিউজিল্যান্ডের। সে অবস্থায় প্রোটিয়া স্পিড স্টার ডেল স্টেইনকে ছক্কা মেরে ম্যাচ জেতান এলিয়ট। এরপর থেকেই এই চেয়ারটি গ্র্যান্ট এলিয়ট সিট নামে সংরক্ষিত। চেয়ারটির ঠিক পিছনে একটি স্মারকে বিষয়টি স্পষ্ট উল্লেখ করা হয়েছে।