কুতুবদিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দস্যু দিদার নিহত

কুতুবদিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দস্যু দিদার নিহত

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ার বড়ঘোপ ইউনিয়নের মধ্যম অমজাখালী এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত দস্যু দিদারুল ইসলাম (৩২) নিহত হয়েছেন।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে সাতটি দেশীয় বন্দুক, ২০ রাউন্ড তাজা ও ৯ রাউন্ড ব্যবহৃত কার্তুজ জব্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) ভোরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত দিদার লেমশিখালী ইউনিয়নের করলাপাড়ার মৃত ইউসুফ নবীর ছেলে।

র‌্যাব কক্সবাজার অফিসের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানান, একদল দস্যু সাগরে ডাকাতি করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি দল দ্বীপের মধ্যম আমজাখালি এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দস্যুরা র‌্যাবকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়।

গোলাগুলির এক পর্যায়ে দস্যুরা পিছু হটলে পরে ঘটনাস্থল থেকে এক মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এসময় সাতটি দেশীয় তৈরী বন্দুক ও ২৯ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. দিদারুল ফেরদাউস জানান, নিহত দস্যু দিদারের বিরুদ্ধে ডাকাতি-হত্যা-অস্ত্রসহ মোট ১৩টি মামলা রয়েছে। দিদার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত দস্যু। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।