কায়সারের মৃত্যুদন্ড বহাল চান অ্যাটর্নি জেনারেল

কায়সারের মৃত্যুদন্ড বহাল চান অ্যাটর্নি জেনারেল

স্টাফ রিপোর্টার : মানবতাবিরোধী অপরাধে জাতীয় পার্টির সাবেক নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের মৃত্যুদন্ডাদেশ বহাল রাখার আর্জি জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। গতকাল মঙ্গলবার এ মামলায় আপিল বিভাগে সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের আপিল শুনানি শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান। নিজ কার্যালয়ে মাহবুবে আলম বলেন, সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের মামলার দীর্ঘদিন পর শুনানি শেষ হয়েছে। রায়ের জন্য আগামী ১৪ জানুয়ারি দিন ধার্য করা হয়েছে। আমি আশাবাদী তার বিরুদ্ধে যে ১৬টি অভিযোগ আনা হয়েছিল তার দু’টি অভিযোগে ট্রাইব্যুনাল তাকে খালাস দিয়েছেন। বাকি ১৪ অভিযোগের মধ্যে সাতটি অভিযোগে তাকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়েছে। চারটি অভিযোগে তাকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছেন। একটি অভিযোগে ১০ বছর, একটিতে সাত বছর, একটি পাঁচ বছর সাজা দেওয়া হয়েছে।

 মাহবুবে আলম বলেন, আমি আজ আদালতে জোরালোভাবে আবেদন জানিয়েছি, যে দু’টি অভিযোগে তাকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে একটি হলো হিরামণি সাঁওতালকে ধর্ষণের জন্য পাকিস্তানি আর্মিকে ইশারা দিয়ে ভিতরে দেওয়া এবং পরে তাকে ধর্ষণ করা। এরফলে তার গর্ভে একটি সন্তান জন্ম নিয়েছিল। সেই সন্তানটিকে দেখতে সাঁওতালদের মতো না। এ কারণে অনবরত ধিক্কার পাচ্ছিল। যে কারণে সে কোনো এক সময় আত্মহত্যা করে। ‘আরেকজন ছিল মাজেদা। যাকে আসামি কায়সার পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে তুলে দিয়েছিল। সেও ধর্ষিত হয়েছিল। তারও একটি মেয়ে সন্তান হয়। সে মেয়েটিও সারাটি জীবন ধিকৃত হয়ে জীবনযাপন করেছে।’

 অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এ মামলায় আমি আবেদন করেছি, একজন মানুষকে হত্যা করলে তখনই শেষ হয়ে যায়, কিন্তু ধর্ষিতা যে তার জন্য প্রতিদিনই মৃত্যু। এটা তার জন্য মৃত্যু, পরিবারের জন্য মৃত্যু। মুক্তিযুদ্ধের সময় কেউ মারা গেলে ওই পরিবারের সদস্যরা গর্ব করে বলে তার পরিবারের লোক শহীদ হয়েছে। কিন্তু ধর্ষণের ঘটনা ঘটলে সেটি কেউ বলতে পারে না, তার পরিবারের কেউ ধর্ষিত হয়েছে। এই যুক্তি দেখিয়ে আমি বলেছি, এই দু’টি অভিযোগে যাতে মৃত্যুদন্ড রাখা হয়।