কারিগরি শিক্ষার্জন করলে কেউ বেকার থাকে না: শিক্ষামন্ত্রী

কারিগরি শিক্ষার্জন করলে কেউ বেকার থাকে না: শিক্ষামন্ত্রী

কারিগরি শিক্ষার্জন করলে কেউ বেকার থাকে না বলে মন্তব্য করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আমাদের দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই। তিনি বলেন, ওসমানীনগর ও বালাগঞ্জ উপজেলায় কারিগরি শিক্ষাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হবে।


রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার ওসমানীনগর মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ‘প্রবাসী বালাগঞ্জ-ওসমানীনগর অ্যাডুকেশন ট্রাস্ট ইউকে’র বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।
 
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী দেশকে খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ করেছেন। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, রাস্তাঘাট পাকা করেছে সরকার। ডিজিটাল দেশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।
 
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস-সামাদ চৌধুরী, সিলেট-২ আসনের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান, হবিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শাহ নেওয়াজ (মিলাদ গাজী), সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেটের পুলিশ সুপার মো. ফরিদ উদ্দিন।
 
ট্রাস্টের সভাপতি রবিন পালের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিরুর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর, বোয়ালজুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আনহার মিয়া, সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, কবির উদ্দিন আহমদ, ট্রাস্ট্রের ট্রেজারার আনছার মিয়া, বৃত্তির আহ্বায়ক আনহার মিয়া, অধ্যক্ষ লিয়াকত শাহ ফরিদী, সহযোগী অধ্যাপক রজিক মিয়া, অধ্যক্ষ মনু মিয়া, অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, ডা. শাকিল আহমদ শাহীন, শামীমুর রহমান, আতাউর রহমান রজব, হান্নান মিয়া প্রমুখ।
 
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাহমিনা আক্তার, ওসমানীনগর থানা সার্কেল রফিকুল ইসলাম, ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশেদ মোবারক, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম আহমদ, চেয়ারম্যান ইমরান রব্বানী, সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া, ওসমানীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবদাল মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান চৌধুরী নাজলু, সহ-সাধারণ সম্পাদক অরুনোদয় পাল ঝলক, সাংগঠনিক সম্পাদক আনা মিয়া, লুৎফুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি চঞ্চল পাল প্রমুখ।
 
অনুষ্ঠানে উপজেলার সাড়ে ৯০০ গরিব, মেধাবী শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রায় ৪০ লাখ টাকার বৃত্তি বিতরণ করা হয়।