কসবার কাজিয়াতলী সীমান্তে ৩১ রোহিঙ্গা ঢোকার অপেক্ষায়

কসবার কাজিয়াতলী সীমান্তে ৩১ রোহিঙ্গা ঢোকার অপেক্ষায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ভারত থেকে মিয়ানমারে পাঠানোর ভয়ে থাকা আরও কিছু রোহিঙ্গা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা সীমান্ত দিয়ে এদেশে ঢোকার অপেক্ষায় রয়েছে। ২৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর মো. শফিক সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের ২০২৯ পিলারের কাছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার কাজিয়াতলী সীমান্ত দিয়ে ৩১ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ-শিশু সীমান্ত রেখায় অবস্থান করছে। বিএসএফের সঙ্গে পতাকা বৈঠক করে এদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে এদের যেন বিএসএফ বাংলাদেশে ঢোকাতে না পারে সেজন্যে বিজিবি সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বলে তিনি জানান। গত দেড় মাসের মধ্যে ভারত থেকে আসা এমন ১৩ শতাধিক রোহিঙ্গাকে কক্সবাজারে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে।

 উখিয়ায় কুতুপালং শরণার্থী শিবির সংলগ্ন জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার ট্রানজিট ক্যাম্পে তাদের রাখা হয়েছে। কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম মান্নান জাহাঙ্গীর বলেন, শুক্রবার রাত থেকে কসবা কাজিয়াতলী সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ার ওপার থেকে ৩১ জন রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ঢোকানোর চেষ্টা করছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিএসএফ। ‘৩১ জন রোহিঙ্গর মধ্যে ছয় জন নারী, আট জন পুরুষ এবং ১৭ জন শিশু রয়েছে। তারা দুই দেশের শূন্যরেখায় খোলা জায়গায় অবস্থান করছে।’ ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে নতুন করে সেনা অভিযান শুরুর পর এ পর্যন্ত সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। তাদের কক্সবাজারের কুতুপালংসহ বিভিন্ন ক্যাম্পে রাখা হয়েছে। এর বাইরে গত কয়েক দশকে বাংলাদেশে আসা আরও প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গার ভার বহন করে চলেছে বাংলাদেশ।